দেশজুড়ে

শার্শার গোগায় ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে তিন জন গুলিবিদ্ধ সহ আহত-১২


নাজিম উদ্দীন জনি,শার্শা(বেনাপোল)প্রতিনিধিঃ যশোরের শার্শার গোগা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নৌকা ও আনারস প্রতিকের কর্মি সমার্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে তিন জন গুলিবিদ্ধ সহ উভয় পক্ষের অনন্ত ১০/১২ জন আহত হয়েছে।

গুলিবিদ্ধরা হলো অগ্রভুলোট গ্রামের নয়মদ্দীনের ছেলে ফজের আলী(৩৫),আজিবর রহমানের ছেলে আশরাফুল(২৫),ওমর আলীর ছেলে রবিউল ইসলাম।

জানাগেছে,গত বৃহস্পতিবার রাতে নৌকার সমার্থকরা তাদের পথসভা শেষে আনারস প্রতিকের একটি নির্বাচনি অফিসে হামলা চালিয়ে ভাংচুরসহ তান্ডবলিলা চালাই।পরে আনারস প্রতিকের সমার্থকরা এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে দুই পক্ষ মারমুখী অবস্থান নেয়। এরই জেরে শুক্রবার সকালে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হলে আনারস প্রতিকের তিন জন গুলিবিদ্ধ সহ ১০/১২ জন আহত হয়।পরে আহতের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কম্পেলেক্স এ ভর্তি করা হয়েছে।

আনারস প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী তবিবর রহমান জানান,আমার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী আব্দুর রশিদ তার বাহিনি দিয়ে প্রথমে আমার নির্বাচনী অফিস ভাংচুরসহ কর্মি সমার্থকদের পিটিয়ে আহত করে।আমার সমার্থকেরা এর প্রতিবাদ জানালে রশিদের পেটোয়া বাহিনী পাঁচভুলোট গ্রামের সবুর বদ্দি, সুজন বদ্দী,আনসার বদ্দী,তরী বদ্দী,জিল্লু,আহসান এর নেতৃত্বে একটি সন্ত্রাসী দল আমার কর্মি সমার্থকদের লক্ষ করে অস্ত্র উচিয়ে গুলি চালাই এতে করে আমার তিনজন কর্মী গুলিবিদ্ধ সহ ১০/১২ জন আহত হয়েছে।

নৌকা প্রতিকের প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ জানান,আমরা শান্তিপূর্ণ ভাবে নির্বাচনের জন্য ভোট প্রার্থনা ও সমাবেশ করছি। কিন্তুু আমার প্রতিপক্ষ পায়ে পা বাধিয়ে হট্টগোলের চেষ্টায় সবসময় লিপ্ত থাকে।গত বৃহস্পতিবার উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ এসে গোগা বাজারে একটি নির্বাচনী পথসভা করে নৌকা মার্কার বিপক্ষে যে সমস্ত আওয়ামিলীগের নেতৃবৃন্দ অবস্থান নিয়েছে তাদের বহিষ্কার করা হবে বলে ঘোষনা দেন। তার পরই তারা নৌকার কর্মিদের উপর মারমুখী হয়ে গোগা বিল পাড়ায় তিনজন নৌকার কর্মিকে কুপিয়ে যখম করে।তাদের কে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কম্পেলেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

শার্শা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার ওসি বদরুল আলম খান জানান,বিষটি শুনেছি।দুপক্ষের সংঘাত রুখতে গোগা এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সংঘর্ষের আশংকায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button