দেশজুড়ে

মুন্সীগঞ্জে ককটেল বিস্ফোরণ ও গোলাগুলির মামলার ৮৫ জন জেল হাজতে

  • 307
    Shares

আবু সাঈদ দেওয়ান সৌরভ, মুন্সীগঞ্জ: মুন্সীগঞ্জে ককটেল বিস্ফোরণ ও গুলাগুলিতে ১২ জন গুলিবৃদ্ধের ঘটনায় পৃথক দুটি মামলায় ৮৫ জনকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। মঙ্গলবার ককটেল বিস্ফোরণ ও গুলাগুলির ঘটনায় পৃথক দুটি মামলায় জামিন আবেদন করলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত (১) এর বিচারক মো. ইমদাদুল হক এ আদেশ দেন।

তথ্য সুত্রে জানা যায়, মুন্সীগঞ্জে আধিপত্য বিস্তাারকে কেন্দ্র করে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির বাড়িতে ককটেল বিস্ফোরণ ও গুলাগুলিতে ১২ জন গুলিবৃদ্ধের ঘটনায় পৃথক দুটি মামলায় ৮৫ জনকে আসামি করে মামলা হয়। ৮ ই জুন মঙ্গলবার রুবেল খানসহ ৫০ জন আসামির জামিন না ম›জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করার আদেশ দেয় আদালত। একই ঘটনায় মুন্সীগঞ্জ থানায় পৃথক মামলায় আধারা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সুরুজ বেপারী (সুরুজ মেম্বার) সহ ৩৩ জন জামিন আবেদন করিলে জামিন না ম›জুর করিয়া আসামিদের জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত (১) এর বিচারক মো. ইমদাদুল হক।

উল্লেখ্য, গত ২৪ মে মঙ্গলবার সকালে সদর উপজেলার চরাঞ্চালের আধারা ইউনিয়নের ষোলারচর গ্রামে। এ হামলায় ৫০ টিরও বেশি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। হামলাকারীরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী হোসেন সরকারের ছেলে বাদলকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে সেই গুলিতে ৪ জন গুলিবিদ্ধসহ ১২ জন আহত হয়েছে। এ সময় হামলাকারীরা অর্ধশতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে গ্রামে আতঙ্ক ছড়িয়ে দেয়।

স্থানীয়রা জানান, ২৪শে মে মঙ্গলবার আধারা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সুরুজ মেম্বারের নির্দেশে তার ৩ ছেলে রমজান, ডালিম ও সাগরের নেতৃত্বে সন্ত্রাসী বাহীনি হঠাৎ করে দুই নং ওযার্ড আওয়ামী লীগ এর সভাপতি মো. আলী হোসেন সরকারের বাড়িতে হামলা চালিয়ে এলোপাথারি গুলিবর্ষণ করে।

প্রাসঙ্গিক, এই মামলার আলোকে ইতোপূর্বে ২ জনকে গ্রেপ্তার করে মুন্সীগঞ্জ থানা পুলিশ। তাদেরও একই সাথে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে মুন্সীগঞ্জ কোর্ট ইন্সপেক্টর মো. জামাল উদ্দিন জানান, মুন্সীগঞ্জ থানার পৃথক দুইটি মামলার ৮৩ জন আসামি জামিন আবেদন করিলে বিজ্ঞ আদালত জামিন না মঞ্জুর করে আসামিদের জেল হাজতে প্রেরণ করার আদেশ দেন।


  • 307
    Shares

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন