রাণীশংকৈলে মাস্ক না পরার অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা

0
7

সফিকুল ইসলাম শিল্পী , রানীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধিঃ উপজেলাবাসী মানছেন না স্বাস্থ্যবিধি, অকারনে বাহিরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন লোকজন আর ব্যবহার করছেন না মাস্ক। এ চিত্র প্রতিদিনের। চলমান করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে সোমবার বিকালে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা প্রশাসন।

এদিকে রানীশংকৈল উপজেলায় হু হু করে বেড়েই চলছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা । বিপজ্জনক চতুর্থ ধাপের প্রভাবে এই সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে ক্রমাগত। চতুর্থ ধাপটিকে চিকিৎসা সংশ্লিষ্টরা খুবই ভয়ানক বলে মনে করেছেন। আক্রান্ত রোগী থেকে প্রথম সংক্রামিত হওয়া রোগীর উপসর্গ দেখা না দেওয়ায় ঘুরে বেড়ান হাট বাজারসহ সর্বত্র । আর এভাবেই তা ছড়িয়ে পরে অন্যাদের মাঝে।

এমন খবরে উপজেলার শিবদিঘী, যাত্রীছাউনি মোড় ও বন্দরের বিভিন্ন মোটরযান, দোকানপাট, মাস্ক বিহীন বিভিন্ন পথচারী, মনিটরিংসহ করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে সমিত পরিসরে নির্দিষ্ট সংখ্যক যাত্রী নিয়ে যানবাহন চলাচলের উপর স্বাস্থ্য বিধি নিশ্চিতকল্পে উপর্যুক্ত অপরাধ ও বিকাল ৪ টার পর চা, হোটেল-মুদি দোকান, বিভিন্ন সো রুম, খোলা রাখার কারণে সংক্রমণ রোগ প্রতিরোধ নিয়ন্ত্রণ আইন ১৮৬০ (২৫) (খ) ধারা মোতাবেক ১২টি দোকান মালিক ও ১১ জনকে মাস্ক না পরার অপরাধে ৮ হাজার টাকা জরিমানা করেন উপজেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত ।

উপজেলায় এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট ও মৌসুমী আফরিদা।

রানীশংকৈল উপজেলায় এখন পর্যন্ত হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ৩ জন করোনা রোগী চিকিৎসাধীন। উপজেলায় মোট করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৮ জন। ৫ জন রোগী সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন । হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৯ জন এবং মৃত্যুবরণ করেন ১জন। তার পরও নেই মানুষের মধ্যে সচেতনতা!