বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

১৩ অক্টোবর আসছে আইফোন-১২

  • 10
    Shares

আইফোনের সম্পূর্ণ নতুন সংস্করণ আইফোন-১২ এর আনুষ্ঠানিকভাবে মোড়ক উন্মোচন হবে আগামী ১৩ অক্টোবর। গেলো সেপ্টেম্বরের এটি হবার কথা থাকলেও কারিগরি জটিলতায় বিলম্ব হয়েছে। পণ্যটি অগ্রিম বুকিং দেয়া যাবে ১৬ অক্টোবর থেকে। বাজারে আনুষ্ঠানিকভাবে আসবে ২৩ অক্টোবর। বার্তা সংস্থা সিএনএন এমন একটি খবর প্রকাশ করেছে।

ওই খবরে বলা হয়েছে, অ্যাপল সাম্প্রতিক বছরগুলোতে তিনটি মডেল দিয়ে লঞ্চ করে আসলেও এবার নিয়ে আসছে আইফোন-১২ এর চারটি মডেল। যার মধ্যে থাকবে আইফোন-১২, আইফোন-১২ মিনি, আইফোন-১২ ম্যাক্স এবং আইফোন-১২ প্রো-মেক্স। রেগুলার আইফোন-১২ পাঁচ দশমিক চার ইঞ্চি এবং আইফোন ১২ ছয় দশমিক এক ইঞ্চি ডিসপ্লের অপশনের থাকবে চার জিবি র‌্যাম।

এছাড়া আইফোন-১২ প্রো ছয় দশমিক এক ইঞ্চি এবং আইফোন-১২ ম্যাক্স ছয় দশমিক সাত ইঞ্চির ডিসপ্লের সঙ্গে থাকবে ছয় জিবি র‌্যাম। এবং ডিসপ্লেতে এফপিএস থাকবে ৬০ গিগা থেকে ১২০ গিগা। ফলে ফোনটি ব্যবহারে আরও বেশি স্বাচ্ছন্দ্য পাওয়া যাবে। ছয় দশমিক সাত ইঞ্চি ডিসপ্লে সংযুক্ত প্রো ভার্সনটি হতে যাচ্ছে আইফোন প্রো-ম্যাক্সের সবচেয়ে বড় ডিসপ্লের আইফোন।

নতুন ফিচার হিসেবে আইফোনে যুক্ত করা হবে ফাইভ জি টেকনোলজি। যার ফলে ইন্টানেট গতি বৃদ্ধি পাবে। এছাড়াও এই ডিভাইসের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে যাবে নিজের গাড়ি, ভার্চুয়াল রিয়েলিটি, স্মার্টসিটির নতুন সব প্রযুক্তি ছাড়াও রোবটের নানা অগ্রগতি সম্পর্কে।

আইফোন-১১ এ আশারুনুপ সফলতা না আসায় তারা গুরুত্ব বৃদ্ধি করছে হার্ডওয়্যারের প্রতি। তা এ-১৪ বায়োনিক প্রসেসর সঙ্গে ব্যবহার করা হয়েছে ৪-৬ জিবি র‌্যাম। যা আইফোন-১১ এর তুলনায় গতি এবং কার্যক্ষমতা বাড়াবে। গবেষণা প্রতিষ্ঠান ক্যানালিসের বিশ্লেষক বেন স্ট্যান্টন জানিয়েছেন, ২০২০ সালের প্রথম দিকে বিক্রি হওয়া স্মার্টফোনগুলোর মধ্যে মাত্র ১৩ শতাংশ ফোনে ফাইভ জি ক্ষমতা ছিল এবং তার কেবলমাত্র ৬ শতাংশ গ্রাহকরা স্মার্টফোনে ফাইভ জি ব্যবহার করেছিল। তবে ভবিষ্যতে ফাইভ জি’ ব্যবহারকারীর সংখ্যা বৃদ্ধির সম্ভাবনার কথা চিন্তা করে এই ফিচার যুক্ত করেছেন তারা।

দামের প্রতি সবসময় বাড়তি নজর রাখে অ্যাপল। প্রতিনিয়ত যেখানে মোবাইলের দাম কমছে সেখান তার প্রিমিয়াম ব্যান্ড ভ্যালুটা ঠিকই ধরে রেখেছে। ফলে আইফোন তার অনুগত ব্যবহারকারীদের ভিত্তিতে এবারও ফোনের দামের ওপর নিয়ন্ত্রণ রাখতে সক্ষম হতে পারে বলে আশা করছেন বিশ্লেষকরা।

নতুন আইফোনের এই লাইনআপের জন্য অ্যাপলের মূল্যের কৌশলটি সম্ভবত সবচেয়ে বড় আলোচনার বিষয় হবে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে প্রিমিয়াম স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের জন্য স্যামসাংয়ের এবং আইফোনের যুদ্ধের ফলে অত্যাধিক দাম বেড়েছে। তবে সাম্প্রতিক মাসগুলোতে স্বল্প দামের ফোনগুলো জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি এবং বাজার দখলে রাখতে ওয়ানপ্লাস এবং গুগোলের মতো প্রিমিয়াম প্রতিষ্ঠানও প্রতিদ্বন্দ্বিতা কমিয়ে দিয়েছে।


  • 10
    Shares

Related Articles