দেশজুড়ে

পূর্ব রাজাবাজার আরও ৭ দিন লকডাউন থাকবে : মেয়র আতিক

  • 6
    Shares

এস,এম,মনির হোসেন জীবন : রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারে চলমান লকডাউন আরও সাত দিন বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।
আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ রোধে সংক্রামক বর্জ্য ব্যবস্থাপনার বিশেষ কর্মসূচি উদ্বোধন কালে তিনি এ ঘোষনা দেন।

এসময় লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর ঘোষণা দিয়ে মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ডিএনসিসির ‘পূর্ব রাজাবাজারে যে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছিলে সেটি আজ রাত ১২টায় ১৪দিন পূর্ব হবে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী এটিকে ২১ দিনে রাখতে হবে। তাই আমরা পূর্ব রাজাবাজারে লকডাউনের সময় আরও সাত দিন বাড়িয়েছি। অর্থাৎ এই এলাকার মানুষকে ২১দিন লকডাউনে থাকতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি স্বাস্থ্য অধিদফতরকে বলেছি ২১দিন পরে এই এলাকার কী অবস্থা তার একটি চিত্র পর্যালোচনা করে আমাদের জনসাধারণকে জানানোর জন্য আমাকে দিতে হবে। আমার সঙ্গে আইইডিসিআরের কথা হয়েছে। তারা বলেছে এই কাজটি তারা করবে।

লকডাউন সফল করতে এলাকাবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে ডিএনসিসি মেয়র বলেন, একইসঙ্গে ১৪ দিনের এই লকডাউন পালনের জন্য এলাকার বাসিন্দা এবং স্বেচ্ছাসেবকদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান আতিক। ঢাকা উত্তরের নগর পিতা আরও বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন বাসা-বাড়িতে যখন ময়লা ফেলি তখন আমাদের রান্নার বর্জ্যের সঙ্গে অন্যান্য বর্জ্য মিশিয়ে ফেলি। এটা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত হুমকিস্বরূপ। করোনা যতো দিন থাকবে আমাদের ম্যানেজ করে চলতে হবে। আমরা আজ থেকে বাসা বাড়িতে বিশেষ ধরনের ব্যাগ চালু করতে যাচ্ছি।

এলাকাবাসির উদ্দেশ্যে মেয়র বলেন, আমাদের পচ্ছিন্নতাকর্মীরা সপ্তাহের শনিবার ও রবিবার দুই দিন নিয়ে যাবে। আমরা এগুলো স্বাস্থ্যসম্মতভাবে পুড়িয়ে ফেলবো। আমাদের বাসা বাড়ির যে ধরণের গ্ল্যাভস, মাস্ক ও পিপিইসহ অন্যান্য যেসব করোনার উপকরণ থাকবে সেগুলো মেহেরবানি করে যত্রতত্র না ফেলে এই ব্যাগের মধ্যে দিয়ে দিবেন।

পূর্ব রাজাবাজারের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে রাজধানীর অন্যান্য এলাকায় লকডাউন করতে চান আতিক। রাজাবাজারের লকডাউনে সাহায্য করার জন্য এলাকাবাসীকে স্যালুট জানান ডিএনসিসি মেয়র। উল্লেখ্য, এর আগে গত ০৯ জুন থেকে পরীক্ষামূলকভাবে লকডাউন করা হয় পূর্ব রাজাবাজার। ওই এলাকায় করোনা ভাইরাস আক্রান্ত শনাক্ত রোগী বেশি হওয়ার কারণে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!


  • 6
    Shares

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button