দেশজুড়ে

বাংলাদেশে টেস্ট খুবই কম, সংক্রমণ হতে পারে দ্রুত গতিতে: ভারতীয় মিডিয়া

  • 533
    Shares

প্রথম দিকে ধীর গতিতে সংক্রমণ হলেও সম্প্রতি বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণ দ্রুত বাড়ছে। ইতোমধ্যেই আক্রান্তের সংখ্যা লক্ষাধিক অতিক্রম করেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের এই দ্রুত গতির সংক্রমণ আরও দ্রুত গতিতে বাড়তে পারে। এই দ্রুত গতিতে বাড়ার অন্যতম কারণ ভাইরাস শনাক্তে প্রয়োজনের তুলনায় খুমই কম- এমনটাই দাবি করছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এই সময়। বিশেষজ্ঞদের বরাত দিয়ে তাদের আশঙ্কা বাংলাদেশে উদ্বেগ হারে বাড়ছে করোনা রোগী।

গণমাধ্যমটি প্রতিবেদনে বলা হয়, আগামী দিনগুলোতে সংক্রমণ আরও দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পেতে পারে বলে আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের।প্রতিবেদনে বলা হয়, আক্রান্তের সংখ্যা দিনদিন লাফিয়ে বাড়ায় বাংলাদেশে করোনা নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক এবং উদ্বেগ ক্রমশ বাড়ছে। ফলে নমুনা পরীক্ষার জন্য লম্বা লাইন দেখা যাচ্ছে বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে।

‘কিন্তু যে সংখ্যক টেস্ট হওয়া উচিত সেই পরিকাঠামো এই মুহূর্তে সে দেশে নেই। যে কারণে রিপোর্ট পেতে অনেক বেশি সময় লাগছে। টেস্টের অপ্রতুল পরিকাঠামোর বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন সরকারি কর্মকর্তারা’ বলা হয় প্রতিবেদনে।পরিকাঠামো উন্নতির পাশাপাশি কভিড রোগীদের চিকিৎসায় হাসপাতালের সংখ্যা বাড়ানোর চেষ্টা চলছে বলে আশ্বস্ত করেছেন তারা।

সংক্রমণ রুখতে আরও বেশি করে টেস্টের উপরে জোর দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। কিন্তু ঘটনা হলো- বাংলাদেশে প্রতি ১০ লাখে টেস্টের সংখ্যা মাত্র ৩ হাজার ২৪২ জন যা প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম।

বর্তমানে ভারতে প্রতিদিন দেড় লাখের বেশি করোনা টেস্ট হচ্ছে। এখন যে পরিস্থিতি তাতে প্রতিদিন বাংলাদেশে অন্তত ৫০ হাজার মানুষের টেস্ট হওয়া উচিত বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সেখানে প্রতিদিন ১৫ হাজার থেকে ১৮ হাজার মানুষের টেস্ট করা হচ্ছে বলে সূত্রের খবর।এই সংখ্যা বাড়িয়ে ২৫ হাজারে নিয়ে যাওয়া সরকারের প্রাথমিক লক্ষ্য বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক প্রবীণ আমলা স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন।ব্রেকিংনিউজ


  • 533
    Shares

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button