জাতীয়

বন্দিদের স্বাস্থ্য-সুরক্ষার জন্য কোরিয়ার তৈরী ‘ভাইরাস জিরো’স্প্রে করা হবে

  • 6
    Shares

এস,এম,মনির হোসেন জীবন : দেশের সকল কারাগারে করোনাভাইরাস রোধকল্পে এবং কারাবন্দিদের স্বাস্থ্য- সুরক্ষা নিশ্চিত করতে কোরিয়া থেকে আমদানিকৃত দামি নতুন মেডিসিন ”ভাইরাস জিরো” স্প্রে করা হবে।
বৃহস্পতিবার সেটা দেশের সকল কারাগারগুলোতে আইসিআরসির গাড়িতে করে ভাইরাস জিরো স্প্রে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেগুলো সুষ্ঠুভাবে ব্যবহারের জন্য কারা অধিদফতরের সব ডিআইজি ও কারাকর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

কারা অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক কর্নেল আবরার হোসেন গনমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
কারাবন্দিদের সুরক্ষায় নানামুখি উদ্যোগও বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে উল্লেথ করে তিনি বলেন, কারাগারে নতুন যে বন্দি আসছে তাদেরকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে রেখে সুস্থতা নিশ্চিত করে তারপর অন্য বন্দিদের সঙ্গে রাখছি। আর করোনার কোনও আলামত বা উপসর্গ দেখা গেলে, সঙ্গে সঙ্গে তার জন্য এবং তার আশপাশে যারা আছে সবাইকে আলাদা করে দিচ্ছি। এবিষয়ে আমরা স্বাস্থ্য অধিদফতরের নির্দেশনার চেয়েও বাড়তি প্রস্তুতি গ্রহন করেছি।

কর্নেল আবরার হোসেন গনমাধ্যমকে আরও বলেন, ইতোমধ্যে আমরা ৮টা আইসোলেশন সেন্টার করেছি। বন্দিদের মধ্যে এখনও কোনও করোনা পজিটিভ পাওয়া যায়নি। শুধুমাত্র ঢাকা মেডিক্যালে যেসব কারারক্ষী দায়িত্ব পালন করেন তাদের ২০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তাদের সঙ্গে যারা ছিল তাদেরকেও টেস্ট করে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে।

কারাগার ও কারাবন্দিদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি উল্লেখ করে কর্নেল আবরার হোসেন গনমাধ্যমকে বলেন, এবিষয়ে আমরা ভাইরাস জিরো’ নামে নতুন একটা দামি মেডিসিন কোরিয়ান থেকে আমদানি করেছি। সেটা দেশের সব কারাগারে ইতোমধ্যে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

কারা অধিদফতরের এই কর্মকর্তা গনমাধ্যমকে বলেন, এটা পানির সঙ্গে মিশিয়ে স্প্রে করলে এর ধারে কাছেও কোনও ভাইরাস থাকে না। থাকলেও সেটা সঙ্গে সঙ্গে মারা যাবে। তবে, আমরা কারাগারে এই ওষুধ দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি।

কারা অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক বলেন, ‘ভাইরাস জিরো’ পৃথিবীর তিনটা দেশ তৈরি করে। জাপান, আমেরিকা ও কোরিয়া। কিন্তু আমেরিকা এবং জাপানের মেডিসিনের ব্যবহারের সময় কম। সেটা ৩ থেকে ৭ দিনের মধ্যে ব্যবহার করে ফেলতে হয়।

তিনি আরও বলেন, এক্ষেত্রে কোরিয়ারটার তৈরীর মেডিসিনের সময়টা অনেক লম্বা। তিন মাস পর্যন্ত এর কার্যকারিতা থাকে। এই নতুন ও দামি মেডিসিন দেশের দুই-একটা প্রতিষ্ঠান ছাড়া আর কেউ এখনও আনেনি।


  • 6
    Shares

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button