উত্তরার দিয়াবাড়িতে ২শ শয্যা পুলিশ ব্যারাকের কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন

0
15

এস,এম,মনির হোসেন জীবন : দেশে চলমান করোনাভাইরাস সংকট পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ পুলিশ সদস্যদের জন্য রাজধানীর উত্তরার দিয়াবাড়ীতে অবস্থিত পুলিশ লাইন্সে নির্মাণাধীন ২০০ শয্যা বিশিষ্ট ব্যারাক পরিদর্শন করলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বিপিএম (বার)।

তিনি শনিবার সকালে দিয়াবাড়ীতে অস্থায়ীভাবে নির্মাণাধীন এল প্যার্টানের এই ব্যারাক পরিদর্শনে গিয়ে কাজের অগ্রগতী দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং বাকি কাজ দ্রুত সমাপ্ত করার নির্দেশ প্রদান করেন। এ সময় তিনি কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান। পরিদর্শন দলের সঙ্গে থাকা ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (এ্যাডমিন) মীর রেজাউল আলম বিপিএম (বার) আজ গনমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি আরও বলেন, জনগণের সেবা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করতে গিয়ে বাংলাদেশ পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ বিপুলসংখ্যক সদস্য করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। আর আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের আবাসন ব্যবস্থা উন্নত করতে এবং পুনরায় তারা যেন আক্রান্ত না হয় সে ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে এই ২০০ শয্যাবিশিষ্ট ব্যারাক নির্মাণ করা হচ্ছে।

মীর রেজাউল আলম বলেন, বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল ড. বেনজীর আহমেদ, বিপিএম (বার) এবং ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বিপিএম (বার) মহোদয়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও নির্দেশনায় করোনা আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের সুচিকিৎসা ও সর্বোত্তম সেবা নিশ্চিত করতে নেওয়া হয়েছে নানামুখী পদক্ষেপ। এরই ফলশ্রুতিতে করোনা আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের সুস্থতার হার একদিকে যেমন দ্রুততার সাথে বাড়ছে, অন্যদিকে কমছে নতুন করে সংক্রমণের সংখ্যা।

এদিকে, আজ শনিবার ডিএমপির জনসংযোগ ও গনমাধ্যম শাখা থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিঞ্জপ্তিতে জানানো হয়, নির্মাণ কাজ শেষ হলে চলতি মাসেই ব্যারাকটির উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার)।

পরিদর্শনের সময়ে সঙ্গে ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস) কৃষ্ণ পদ রায় বিপিএম (বার), পিপিএম (বার), গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোঃ আবদুল বাতেন বিপিএম (সেবা), পিপিএম, যুগ্মপুলিশ কমিশনার (হেডকোয়ার্টার্স) শাহ মিজান শাফিউর রহমান বিপিএম (বার), পিপিএম-সেবা, ডিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার (সদরদপ্তর ও প্রশাসন) আনিসুর রহমান বিপিএম (বার), পিপিএম (বার), ডেভলোপমেন্ট বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার সারোয়ার মুর্শেদ শামীম, উত্তরা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার নাবিদ কামাল শৈবাল পিপিএম-সেবা ও ট্রাফিক (উত্তর) বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ সাইফুল হক।

সংবাদ বিঞ্জপ্তিতে আরও বলা হয়, নগরবাসীকে ঘরে থাকার জন্য সচেতনতা বৃদ্ধি, জীবানুনাশক স্প্রে ছিটানো, খাদ্য সহায়তা, ত্রাণ পৌঁছে দেয়াসহ করোনা সংকট পরিস্থিতিতে আইন-শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে বিপুলসংখ্যক পুলিশ সদস্য। পুলিশের নিজস্ব হাসপাতাল কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতাল(সিপিএইচ) ছাড়াও বেসরকারী ইমপালস্ হাসপাতাল ভাড়া নিয়ে চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হচ্ছে করোনা আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের।

এতে আরও বলা হয়,পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণের সমন্বয়ে গঠিত পর্যবেক্ষণ দলের মাধ্যমের সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর নিচেছন। করোনা আক্রান্ত ডিএমপির ১ হাজার ৭২৮ জন পুলিশ সদস্যের মধ্যে সুস্থ হয়ে ইতিমধ্যে কাজে ফিরেছেন ১ হাজার ২৪ জন সদস্য। এছাড়া ডিএমপির ৬৯৪ জন সদস্য চিকিৎসাধীন রয়েছেন।