বিধিনিষেধ শিথিল: ফেরিতে ঢাকামুখীদের ভিড়

0
33

রোজার ঈদ সামনে রেখে সরকার লকডাউনের বিধিনিষেধে ছাড় দেওয়ার পর দক্ষিণাঞ্চল থেকে ঢাকামুখী মানুষের স্রোত শুরু হয়েছে। কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে মঙ্গলবার সকাল থেকে ছিল ঢাকামুখী যাত্রীর ঢল। ফেরিতে উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি উপক্ষো করে গাদাগাদি করে মানুষ ফেরিতে করে পদ্মা নদী পাড়ি দিচ্ছে।

এই নৌরুটে ১৭টি ফেরির মধ্যে সবগুলো চালু না থাকা এবং হঠাৎ যাত্রী বেড়ে যাওয়ায় কাঁঠালবাড়ি ও শিমুরিয়া ঘাটে ব্যাপক ভিড়ের সৃষ্টি হয়।করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকার গত ২৬ মার্চ থেকে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সবাইকে ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়েছে। প্রথম এক মাস বাইরের সব ধরনের কাজকর্ম, দোকানপাট, কল-কারখানা ও গণপরিবহন বন্ধ থাকলেও কিছু দিন ধরে পোশাক কারখানা চালু হয়েছে। আগামী ১০ মে থেকে শপিং মলগুলোও খোলার সিদ্ধান্ত দিয়েছে সরকার।

এর আগে সীমিত আকারে পোশাক কারখানা খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৈরি পোশাক কারখানা মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ। তখন ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুর আসতে শুরু করে পোশাক শ্রমিকরা।মঙ্গলবার শিমুলিয়া ঘাটে গিয়ে দেখা যায়, ওপারের কাঁঠালবাড়ি থেকে কোনো ফেরি শিমুলিয়া ঘাটে আসলে কয়েকটা গাড়ির সঙ্গে শত শত মানুষ নামছে। শিমুলিয়া ঘাটে নেমে যাত্রীবাহী বাস না পাওয়ায় তারা নসিমন, করিমন, অটোরিবশা, পিকাপভ্যান, মোটরসাইকেল, ট্যাক্সি ক্যাব, মাইক্রোবাসসহ বিভিন্ন প্রকার যানবাহনে ভেঙে ভেঙে নানা উপায়ে ঢাকার দিকে রওয়ানা দিচ্ছে।

মাওয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক সিরাজুল কবির জানান, গত দুই দিন যাত্রীর চাপ কিছুটা কম ছিল। মঙ্গলবার সকাল থেকে আবার ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ বেড়েছে। ফেরি পার হয়ে শিমুলিয়া ঘাটে এসে তারা গন্তব্যে ছুটছেন।“তবে আজ শুধু গার্মেন্টস কর্মীই নয়, দোকানের কর্মচারী, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক, চাকরিজীবীসহ সকল শ্রেণি-পেশার মানুষকেই ঢাকায় ছুটতে দেখা গেছে। সম্ভবত সরকার মার্কেট খুলে দেওয়ার ঘোষণা দেওয়ায় এখন মানুষজন ঢাকামুখী হতে শুরু করেছে।”

বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের এজিএম শফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে এখন দিনের বেলায় তিনটি ও রাতে ছয়টি ফেরি চলাচল করছে। জরুরি গাড়ি পারাপারের জন্য এ সকল ফেরি সচল রাখা হয়েছে।“তবে রাতের বেলায় পণ্যবাহী ট্রাকগুলো পারাপারের জন্য একটু বেশি সংখ্যক ফেরি রাখা হয়েছে। অন্যসব নৌযান বন্ধ থাকায় এখন এসব ফেরিতে হাজারো ঢাকামুখী যাত্রী পার হচ্ছে।”

মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি ঘাটেও এ্কই চিত্র দেখা যায়।

বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ঘাটের ব্যবস্থাপক আবদুল আলীম বলেন, কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে চলমান ১৭টি ফেরির মধ্যে দুইটি রোরো, দুইটি ডাম্প, দুইটি কে টাইপ ও একটি মধ্যম ফেরির মাধ্যমে যাত্রী ও যানবাহন পার করা হচ্ছে।সকাল থেকেই রাজধানীমুখী যাত্রীর অতিরিক্ত চাপ রয়েছে বলে তিনি জানান।

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে। মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ৭৮৬ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে, যা এ যাবৎকালে একদিনে সবচেয়ে বেশি।বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১০ হাজার ৯২৯ জন। আর এই রোগে মৃত্যু হয়েছে ১৮৩ জনের।