নতুন জটিলতায় শাকিবের ‌‘তুফান’

0
98

আসছে ঈদে মুক্তির অপেক্ষায় আছে শাকিব খানের ‌‘তুফান’ ছবিটি। সিনেমার টিজার প্রকাশের পর নকলের আভাস নিয়ে হইচই পড়েছে। এর পরপরই দেশীয় প্রযোজকরা অভিযোগ করছেন সিনেমা নির্মাণের নামে অর্থ পাচার করেছে সংশ্লিষ্টরা। সম্প্রতি বিষয়টি নিয়ে এফডিসির ১৯ সংগঠনের নেতারা প্রকাশ্যে ‘তুফান’ বিরোধী বক্তব্য রেখেছেন। চলচ্চিত্রপাড়ায় এ নিয়ে ক্ষোভ বিরাজ করছে। ঠিক সেই সময় শাকিব খান অভিনীত সিনেমাটি নিয়ে আরও এক চাঞ্চল্যকর তথ্য মিলেছে।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, রেন্টাল জটিলতায় পড়েছে কথিত ৮-১০ কোটি টাকা বাজেটের সিনেমাটি। বুধবার (৫ জুন) সিনেমা হল মালিক, বুকিং এজেন্ট ও কিছু সংখ্যক ভাড়া করা হলের দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের সঙ্গে মিটিংয়ে বসে ‘তুফান’ টিম। কিন্তু বেশি ‘রেন্টাল’ দাবি করায় অনেক হল বুকিং এজেন্ট ও ভাড়া করা হলের মালিকরা অসন্তোষ প্রকাশ করেন। কেউ কেউ ক্ষিপ্ত হয়ে বৈঠক থেকে ফিরে আসেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক হল মালিক জানান, বেশি টাকা দিয়ে আমরা ঈদে এই সিনেমা চালাব না। প্রয়োজন হলে ঈদে পুরোনো সিনেমা চালাব। তারা যে টাকা দাবি করছে গ্যারান্টি কি দিতে পারবে সিনেমা আদৌ সেই টাকা ব্যবসা করবে? আমাদের বাজার বুঝে রেন্টাল চাইতে হবে। বছরের পর বছর ধরে এই ব্যবসা করছি। কোনো কিছুই অতিরিক্ত ভালো না।

তবে সূত্রটি আরও জানায়, ঈদে বেশির ভাগ হল মালিকই তুফান সিনেমাটি প্রদর্শন করতে আগ্রহী। কিন্তু অতিরিক্ত রেন্টাল দাবি করায় বেঁকে বসেছেন হল মালিকরা।

এদিকে গত বছরের ১১ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে পাঁচতারা হোটেলে ঘোষণা দেওয়া হয় তিন প্রযোজকের ব্যানারে নির্মিত হচ্ছে ‘তুফান’ সিনেমাটি। তিন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান হলো আলফা আই স্টুডিওস লিমিটেড, ওটিটি প্ল্যাটফর্ম চরকি এবং ভারতের পশ্চিমবঙ্গের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান এসভিএফ। ছবিটি নির্মাণ করবেন রায়হান রাফি। ঘোষণা অনুযায়ী সবকিছু ঠিকমতোই হয়েছে।

এই সময়ে ছবিটি ঘিরে যত রকমের প্রেস রিলিজ ও সংবাদ ছাপা হয়েছে, সবখানেই আছে তিন প্রযোজকের নাম। সবকিছুই ঠিকঠাক ছিল। কিন্তু সম্প্রতি পাওয়া সেন্সর ছাড়পত্রে দেখা যাচ্ছে প্রযোজক হিসেবে আছে শুধু আলফা আই স্টুডিওস লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী শাহরিয়ার করিম ভূঁইয়ার (শাহরিয়ার শাকিল) নাম।

বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইতোমধ্যে সমালোচনা শুরু হয়েছে। সমালোচনাকারীদের মতে, ঈদ উৎসবে যৌথ প্রযোজনার ছবি মুক্তির বিধিনিষেধ এড়াতেই শেষ পর্যন্ত তুফানকে দেশি ছবি হিসেবে দেখানো হয়েছে।

শাহরিয়ার করিম ভূঁইয়া জানান, তুফান ছবিটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান আলফা আই স্টুডিওস লিমিটেড। সে কারণে সেন্সর ছাড়পত্রে তার নাম লেখা। কারণ, এটা একটা বাংলাদেশি সিনেমা। এ ছাড়া চরকি হলো ডিজিটাল পার্টনার ও এসভিএফ ইন্টারন্যাশনাল ডিস্ট্রিবিউটর।

প্রসঙ্গত, অ্যাকশন ধাঁচের এই সিনেমায় শাকিবের বিপরীতে অভিনয় করেছেন ঢাকার মাসুমা রহমান নাবিলা ও কলকাতার মিমি চক্রবর্তী। গ্যাংস্টারের কাহিনি নিয়েই এগিয়ে যাবে তুফানের গল্প। নব্বই দশকের একজন গ্যাংস্টারের ভূমিকায় দেখা যাবে শাকিব খানকে। এতে আরও অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, মিশা সওদাগরসহ অনেকে। ভিলেন চরিত্রে রয়েছেন অভিনেতা যিশু সেনগুপ্ত। যদিও তার বিষয়টি এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করেননি পরিচালক কিংবা প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। সুত্রঃ আরটিভি