সকাল ৬:৩১ বৃহস্পতিবার ১৪ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

ঘুষ-সুপারিশ ছাড়াই পুলিশের চাকুরি, প্রশংসিত মৌলভীবাজারের এসপি

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : জুলাই ১২, ২০১৯ , ১০:০৭ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : সিলেট
পোস্টটি শেয়ার করুন

মোঃ ইব্রাহিম হোসেন,নিজস্ব প্রতিনিধিঃ অবিশ্বাস্য হলেও সত্য কোন রকম ঘুষ-সুপারিশ ও দুর্নীতি ছাড়াই মেধার ভিত্তিতে মৌলভীবাজারে পুলিশের নতুন ৩শত ১৫ জন কনস্টেবল নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে প্রেস ব্রিফিং দিলেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শা্হ জালাল।

পুলিশের চাকুরি এতদিন সাধারণ মানুষের কাছে ছিল সোনার হরিণের মত কিন্তু সে ধারণা বদলে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ড. জাবেদ পাটোয়ারী। দেশের সব জেলার মত মৌলভীবাজার জেলাও সম্পন্ন হয়েছে নিয়োগ প্রক্রিয়া। আর এমন স্বচ্ছ নিয়োগের কারিগর হচ্ছেন মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শা্হ জালাল। এ কারণে তিনি সকলের নিকট প্রশংসিত হয়েছেন।

গত ২৬ জুন মৌলভীবাজার পুলিশ লাইন্সে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল (টিআরসি) অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থী প্রায় সাড়ে ৩ হাজার প্রার্থীর মধ্য থেকে শারীরিক মাপ ও শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রসহ অন্যান্য কাগজপত্র যাচাই বাছাই শেষে ৯ শত ১৬ জন প্রার্থীকে লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য নির্বাচিত করা হয়।

এর মধ্য থেকে লিখিত পরীক্ষার জন্য বাছাই করা হয় ৩শত ১৫ জনকে। এতে উর্ত্তীণ হন ১শত ৩৬ জন। এরমধ্যে ৩৭ জন নারী।

ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল (টিআরসি)পদে নিয়োগ চুড়ান্তভাবে যে সব সন্তানরা চাকরি পেলেন তাদের মধ্যে চা শ্রমিক ১৩জন,দিন মজুর ৬জন, পরিবহন শ্রমিক ২জন, হোটেল শ্রমিক ১জন, পিতৃহীন ১০জন, কৃষক ৪৩জন, প্রবাসী ১১জন, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ১২জন, গ্রাম্য ডাক্তার ৩ জন, মুদি দোকানদার ২জন, পান দোকানদার ৩জন, রাজমিস্ত্রী ৩জন, কাঠ মিস্ত্রী ২জন, রিক্সা চালক ১জন, নাপিত ১জন, পুরোহিত ১জন, নাইট গার্ড ১জন, সরকারী চাকুরীজীবি ৬জন, বে-সরকারী চাকুরীজীবি ৪ জন, অবসরপ্রাপ্ত ৬জন, শিক্ষক ১জন ও কর্মহীন ৩জন।

মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহ জালাল বিপিএম, পিপিএম জানান, পরীক্ষার আগ থেকেই সর্তক ছিল জেলা পুলিশ দালালরা যাতে চাকুরি প্রার্থীদের প্রতারিত করতে না পারে সে জন্য বিভিন্ন জেলার সকল থানায় মাইকিংও করা হয়। অবশেষে অনিয়মের কোন অভিযোগ ছাড়াই মৌলভীবাজারে নিয়োগ পরীক্ষা সম্পন্ন করা হল।

Comments

comments