ইন্টারনেটের গতিতে বাংলাদেশের সাত ধাপ উন্নতি

0
37

দেশে মোবাইল ইন্টারনেটের গতি বেড়েছে। এতে বৈশ্বিক র‌্যাঙ্কিংয়েও বাংলাদেশের উন্নতি হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ওকলার র‌্যাঙ্কিং অনুসারে, গত নভেম্বরে মোবাইল ইন্টারনেটের গতিতে বিশ্বের ১৪২টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১১৯তম। এর ফলে আগের মাসের তুলনায় সাত ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ।

বিভিন্ন দেশের ইন্টারনেটের গতি নিয়ে প্রতি মাসে ‘স্পিডটেস্ট গ্লোবাল ইনডেক্স’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ করে ওকলা। এই প্রতিবেদনে, সবার ওপরে রয়েছে কাতার। দেশটি এক ধাপ এগিয়ে শীর্ষে জায়গা করে নিয়েছে। আর বাংলাদেশের পরেই জিম্বাবুয়ে, ফিলিস্তিন, ভেনিজুয়েলা ও আফগানিস্তানের অবস্থান।

প্রতিষ্ঠানটির হিসেব বলছে, দেশে গত নভেম্বরে মোবাইল ইন্টারনেটে গড় ডাউনলোড গতি ছিল ১৩ দশমিক ৯৫ এমবিপিএস। আর আপলোডের গতি ছিল ৯ দশমিক ২ এমবিপিএস।

এদিকে ২০২১ সালের নভেম্বরে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১৩০তম। সেখান থেকে একই বছরের ডিসেম্বরে অবস্থান ছিল ১২৮তম। পরের বছর ২০২২ সালের শুরুতে আবারও ১৩০তম, ফেব্রুয়ারি-মার্চ-এপ্রিলে অবস্থান ছিল ১২৯তম। তবে মে মাসে সবচেয়ে বেশি অবনতি হয়ে ১৩৪তম অবস্থানে ছিল বাংলাদেশের মোবাইল ইন্টারনেটের গতি। তবে সবশেষ উন্নতি-অবনতির মধ্য দিয়ে গেল বছরের নভেম্বরে ১১৯তম অবস্থানে ছিল বাংলাদেশ।

মোবাইল অপারেটরদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটরস অব বাংলাদেশের (অ্যামটব) মহাসচিব এস এম ফরহাদ গণমাধ্যমে জানান, দেশের মোবাইল অপারেটররা উৎকৃষ্ট মানের সেবাদানের জন্য সব সময়ই সচেষ্ট থাকে। আমরা সব সময় বলে এসেছি আমাদের তরঙ্গস্বল্পতা রয়েছে, যা ভালো ফলের অন্তরায়।

তিনি আরও জানান, অপারেটররা শতকোটি ডলারের বেশি ব্যয় করে সরকারের কাছে থেকে তরঙ্গ বরাদ্দ নিয়েছে, তা তারা তাদের নেটওয়ার্কে সংযুক্ত করছে। সে কারণে সূচকে ভালো ফল পাওয়া যাচ্ছে।

ওকলার হিসাব বলছে, মোবাইল ইন্টারনেটের গতিতে গত নভেম্বরে ভারত ১০৫তম, পাকিস্তান ১১৪তম, শ্রীলঙ্কা ১১৮তম, নেপাল ১২১তম, আফগানিস্তান ১৪২তম অবস্থানে ছিল। তবে সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে নয় ধাপ এগিয়ে সবার ওপরে ২২তম অবস্থানে ছিল মালদ্বীপ।

একইভাবে গত নভেম্বরের ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের গতির চিত্রও তুলে ধরেছে ওকলা। এতে তিন ধাপ এগিয়ে ১৮০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১০২তম। এতে বাংলাদেশের পেছনে আছে শ্রীলঙ্কা, ভুটান, মালদ্বীপ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান। ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের গতিতে এগিয়ে আছে ভারত।