বরিশাল

ভোলা- লক্ষীপুর সড়কের উপর অবৈধ পার্কিং, বাড়ছে দূর্ঘটনা

ইয়ামিন হোসেন,ভোলা: ভোলা -লক্ষীপুর সড়কের উপর দুই কিলোমিটার পর্যস্ত ফেরির অপেক্ষারত গাড়ীর অবৈধ পাকিং প্রতিনিয়ত ঘটছে দূর্ঘটনা দেখার কেউ নেই। সরজমিন ইলিশা পন্ডিতের হাট গিয়ে দেখা যায় ইলিশা ফেরিঘাটের ফেরির অপেক্ষায় প্রায় দুই কিলোমিটার পর্যন্ত গাড়ি পার্কিংয়ের কারণে স্থানীয় যান চলাচল ও সাধারন পথচারীদের চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। বাড়ছে দুর্ঘটনা। রাস্তা দখলের কারণে বাধ্য হয়ে গাড়ি রাস্তার মাঝখানে ডিভাইডার ঘেষে চলাচল করছে। ফলে পথচারীরা রাস্তায় হাঁটতে গিয়ে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে।

দেখা যায় ইলিশা মাদ্রাসার হাট থেকে ফেরিঘাট পর্যন্ত পুরো সড়কটি পার্কিংকারীদের দখলে। কিন্তু কেউ এই বিষয়ে মাথা ঘামাচ্ছে না বলে ফিরে আসছে না সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা। ইলিশা ফেরিঘাটের স্থায়ী গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা না থাকায় প্রধান সড়কের দুই পাশে রাখা হচ্ছে সারি সারি গাড়ি। ভোলা- লক্ষীপুর সড়কের পাশে গাড়ি ট্রাক পাকিং করার কারনে ধিরগতি হচ্ছে স্থানীয় যানচলাচল প্রতিনিয়ত ঘটছে বিভিন্ন ধরনের দুর্ঘটনা।

ইলিশা জংশন মাদ্রাসা রোডের ব্যবসায়ী রিয়াজউদ্দিন জানান,ইলিশা সড়কটির উপর ফেরির অপেক্ষারত ট্রাক ও গাড়ী রাখার কারনে প্রতিদিন ঘটছে দূর্ঘটনা কিন্তু এই বিষয়ে দেখার কেউ নেই আমরা অতিদ্রুত একটি বাস ষ্ট্যান্ড করার দাবী জানাচ্ছি। এক স্কুল শিক্ষক জানান,আমাদের শিক্ষার্থীরা এই সড়কটি দিয়ে আসে আমরা সব সময় আর্তকে থাকি।

এসময় সকলে দাবী করেন একটি স্থায়ী বাস ষ্ট্যান্ড নাম প্রকাশ না করার সত্ত্বে একজন সরকারী কর্মকতা জানান, জংশন বাজারের ওয়াপদা পুকুরটি ভরাট করে একটি স্থায়ী বাস ষ্ট্যান্ড করলে হইতো সড়কের উপর আর অবৈধ পাকিং থাকতো না।

এবিষয়ে ইলিশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাছনাঈন আহমেদ হাছান মিয়া জানান, আমরা ও একটি বাস ষ্ট্যান্ড চাই এই ভাবে রাস্তায় পাকিং এর কারনে প্রতিনিয়ত দূর্ঘটনা ঘটছে তবে আমি উদ্ধোতন কর্তৃপক্ষ কে জানিয়েছি।

ইলিশা পুলিশ ফাড়িঁর ইনর্চাজ মোক্তার হোসেন জানান,ঘাটে জায়গা না থাকায় এখানেই গাড়ী ও ট্রাক রাখছে যদি স্থায়ী জায়গা থাকতো তাহলে এখানে রাখতে দেওয়া হইতো না।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.