মোহনপুরে কর্তব্যরত নার্সকে স্থানীয় যুবকের হাতুড়িপেটা

0
466

রিপন আলী, রাজশাহী ব্যুরোঃ রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত এক নার্সকে হাতুড়িপেটা করেছে স্থানীয় এক যুবক। শুধু তাই নয়; হত্যার উদ্দেশ্যে ওই নার্সকে গলাও টিপে ধরেন তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মোহনপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত অবস্থায় তার ওপর এই হামলা চালানো হয়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় সহকর্মীরা তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা করেন।

এদিকে হামলার ঘটনায় বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় অভিযুক্ত যুবক মেহেদী হাসানকে আসামি করে মোহনপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা রাশেদুল ইসলাম বাদি হয়ে মোহনপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।তবে অভিযুক্তকে শনাক্ত করা গেলেও বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তাকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। অভিযুক্ত উপজেলার সইপাড়া গ্রামের রিয়াজের ছেলে মেহেদী। বাবা-ছেলে দুজনই কৃষিকাজ করেন। মেহেদি মাদকাসক্ত বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আর হামলার শিকার ওই নার্সের নাম শিলা প্রামাণিক (৩০)। তিনি মোহনপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র স্টাফ নার্স। আহত শিলার সহকর্মীদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, শিলা পরামানিক স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কম্পিউটারে কাজ করছিলেন। এ সময় হঠাৎ সেখানে ঢুকে পেছন থেকে তার মাথায় হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করেন ওই যুবক। একপর্যায়ে গলা টিপে ধরেন। আহত শিলার মাথায় ছয়টি সেলাই দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ‘হামলার ঘটনায় সন্ধ্যা ৬টা ৩৫ মিনিটে থানায় একটি মামলা হয়েছে। ঘটনার পর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও আশপাশের সিসি টিভি ফুটেজ দেখে এক যুবককে শনাক্ত করা হয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে। তবে কেন ওই যুবক হঠাৎ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অভ্যন্তরে ঢুকে কর্তব্যরত নার্সের ওপর এভাবে হামলা চালালো তা জানা যায়নি। আশা করছি, দ্রুত হামলাকারী যুবককে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে। গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদে হামলার প্রকৃত কারণ জানা সম্ভব হবে।’