দেশজুড়ে

গোবিন্দগঞ্জে ডিলার জেল হাজতে, গো-ডাউনে সিলগালা

  • 33
    Shares

ছাদোকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার ফেয়ার প্রাইজের চাল কালো বাজারে পাচার কালে পুলিশের হাতে আটক। ২ জুলাই ( বৃহস্পতিবার সকালে গো-ডাউনে সিলগালা করেন। জানা যায়, শালমারা ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে একই ইউনিয়নের অপর ডিলার জাহাঙ্গীর আলমের মাধ্যমে প্রকৃত ১০৪ জন কার্ডধারীদের হাতে এসব চাল তুলে দেন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) আইয়ুব আলী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফেয়ার প্রাইজের ডিলার জাহাঙ্গীর আলম, স্থানীয় সমাজসেবক আব্দুল খালেক।

শালমারা ইউনিয়নের ফেয়ারপ্রাইজের ৮৫০ নং কার্ডধারী আজিজার শেখ ও ৬৩০ নং কার্ডধারী আলিম বলেন আমাদের নামে ফেয়ার প্রাইজের চালের কার্ড ইসু হলেও আমরা কোন কার্ড ও চাল এ যাবৎ পায়নি। আমাদের কার্ডের চাল ডিলার জিল্লুর রহমান আত্মসাত করেছেন। তাই আমরা এর বিচার দাবী করছি।

ডিলার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, যেহেতু চাল কালোবাজারে পাচারকালে প্রশাসনের হাতে ধরা পড়ে ডিলার জিল্লুর রহমান জেল হাজতে আছেন। তাই উপজেলা প্রশাসন সিলগালাকৃত চাল গুলোর মূল কার্ডধারীদের বের করে আমার মাধ্যমে বন্টন করছে।

শালমারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) আইয়ুব আলী জানান, উপজেলায় হতদরিদ্র মানুষের মাঝে ১০ টাকা কেজি দরে ফেয়ার প্রাইজের চাল কার্ডধারী উপকারভোগিদের মাঝে সুষ্ঠ ভাবে বন্টনের জন্য শালমারা ইউনিয়নে ২ জন ডিলার নিয়োগ করেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অধিদপ্তর। এর শুরু থেকেই ডিলার জিল্লুর রহমান ফেয়ারপ্রাইজের চালের উপকারভোগি সদস্যদের কার্ড নিজের কব্জায় নিয়ে তাদের চাল আত্মসাত করেছে। উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশ ক্রমে নতুন ভাবে ফেয়ারপ্রাইজের কার্ডধারীদের অনুসন্ধান করলে দেখা যায় এ ইউনিয়নে ডিলার জিল্লুর রহমানের অধিনস্ত ১০৪ জন কার্ডধারী ব্যক্তির নামের অনুকুলে কোন কার্ড খুঁজে না পাওয়া গেলে তালিকা অনুযায়ী উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অধিদপ্তর নতুন ভাবে এদের নামে কার্ড ইসু করে। সেই কার্ড অনুযায়ী উপকারভোগিদের উপস্থিতিতে তাদের হাতে এ চাল বুঝে দেওয়া হয়।

তিনি আরো বলেন, এ ছাড়াও আরো ১১০ জন কার্ডধারী ব্যক্তি ডিলার জিল্লুর রহমানর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন, ১৮ কোটা চালের মধ্যে ৪ কোটা চাল তারা পেয়েছে। কৌশলে চাল আত্মসাতকারী দুর্নীতিবাজ ডিলার জিল্লুর রহমান তাদের কার্ড গুলো নিয়ে তাদের চাল না দিয়ে নিজেই মাষ্টার রোল সঠিক দেখিয়ে চাল আত্মসাত করায় তারা এ অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগের সত্যতা যাছাই বাছাই শেষে উপজেলায় খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা স্বপন কুমার দে নিকট জমা দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য গত ২২ মে রাত অনুমান সাড়ে ৭ টার দিকে শাখাহাতি বালুয়া বাজারে ১৪৩ বস্তা চাল পাচারকালে ডিলার জিল্লুর রহমান পুলিশের হাতে আটক হয়। এ ব্যাপারে গোবিন্দগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অধিদপ্তর। যার মামলা নং জিআর ২১৪/২০২০। বর্তমানে ডিলার জিল্লুর রহমান এ মামলায় গাইবান্ধা জেলহাজতে আছেন।


  • 33
    Shares

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button