দেশজুড়ে

শ্রীমঙ্গলে শিশু রিমন হত্যার জেরে চা-বাগানে উত্তেজনা বাড়ি ঘরে আগুন


কে এস এম আরিফুল ইসলাম, ডিভিশনাল চিফ রিপোর্টার : মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলের বিলাসছড়া চা-বাগানে পাঁচ বছরের শিশুকে ডেকে নিয়ে গলাকেটে হত্যার ঘটনায় প্রতিপক্ষ বিলাসছড়া চা বাগান বস্তির বেশ কয়েকটি বাড়ি ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে। একই সাথে শ্রমিকরা সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে বিলাসছড়া পরীক্ষণ খামার কার্যালয় সকাল থেকে ঘেরাও করে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে। এরিমধ্যে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার (১ জুলাই) বিলাসছড়া এলাকায় সরেজমিনে গেলে পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, একই এলাকার চা শ্রমিক মো. ইউনুস কয়েক মাস আগে শিবু গড়ের সিএনজি আটোরিকশার ব্যাটারি চুরি করে নিয়ে যায়। এ নিয়ে স্থানীয় লোকজন সালিস বৈঠকে ইউনুসকে দোষী সাব্যস্ত করে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেন। কিন্তু সে (ইউনুস) এ টাকা দিতে অস্বীকার করে। এ ব্যাপারে সম্প্রতি শিশুর বাবা (শিবু গড়) টাকা না দিলে তাকে থানায় মামলার ভয় দেখায়। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে।
মঙ্গলবার দুপুরে শিবুর শিশুপুত্র রিমন গড় পাশের বাড়ি থেকে দুধ আনতে গেলে ইউনুসের সাথে তার দেখা হয়। এ সময় রিমনকে ময়না পাখির বাচ্চা দেয়ার কথা বলে চা-বাগানের ৪নং সেকশনে নিয়ে যায়। এরপর থেকে রিমনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। এদিন সন্ধ্যায় চা-বাগানের ৪নং সেকশনের একটি জঙ্গল থেকে গলাকাটা অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এদিকে শিশু রিমনের এমন হত্যাকাণ্ডে পুরো চা বাগানে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। বাবা মা পাড়া প্রতিবেশী কারো যেন আহাজারি থামছে না। এলাকার প্রত্যেকে ইউনুসকে দায়ী করে এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন। অপরদিকে ক্ষিপ্ত চা শ্রমিকরা আজ বুধবার বিলাসছড়া চা-বাগানের গাঙ্গপাড় শ্রমিক বস্তিতে ইউনুসের বাড়িসহ দশটি বাড়িতে ভাংচুর ও আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়।

ইউনুসের বাবা হানিফ জানিয়েছেন, সকাল দশটার দিকে উত্তেজিত চা শ্রমিকরা তার ছেলে ইউনুসের ঘরে আগুন দেয়। পড়ে তার ঘরসহ বেশ কয়েকটি ঘরে আগুন দেয় ও অতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। তিনিসহ তার পরিবারের লোকজন ভয়ে পালিয়ে যায়। তিনি জানান, সে আমাকে ও আমার আরো দু ছেলেকে কয়েকদিন আগে হত্যার হুমকি দেয়। তিনি বলেন, আমি তো দোষ করিনি। অগ্নিসংযোগে প্রায় দশ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। বিলাসছড়া চা বাগানের পঞ্চায়েত প্রধান হিরণ ব্যানার্জী সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে বিচার দাবি করছেন। অপরদিকে শ্রীমঙ্গল থানা সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আশরাফুজ্জামান জানান, ইউনুসকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ইউনুস শিশু রিমন হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছে।

এমন নির্মম হত্যাকাণ্ডে শিশুর বাবা-মা পাড়া-প্রতিবেশীর আহাজারিতে বাতাস ভারি হয়ে উঠছে। এলাকায় চরম থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button