দেশজুড়ে

অসহায় বৃদ্ধাকে পাকা বাড়ি করে দিলেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার তানভীর আরাফাত

  • 59
    Shares

রেজা আহাম্মেদ জয়ঃ মিডিয়ায় প্রচার হয় কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নে ৮০বছরের আমিরুন নেছা নামের এক বৃদ্ধার ঘর (ঘূর্ণিঝড় আম্পানে দোচালার একটি ঘর পড়ে যায়) থাকার জায়গা নাই। সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন দেখে ওই মহিলার বাড়িতে ছুটে যান কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার)। অসায় নারীকে খাদ্য সহয়তা দেয়াসহ নতুন ঘর তৈরির প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসেন। পরে পুলিশ সুপার তার নিজ উদ্যোগে বৃদ্ধা মহিলাকে একটি পাকা ঘর উপহার দিলেন।

আমিরুন নেছা। বয়স ৮০ ছুঁইছুঁই। স্বামী সন্তান না থাকায় পালিত নাতির সাথে বাস করতেন। সর্বশেষ আম্পানের আঘাতে একটি দোচলা ঘরে ঘরটি পড়ে যায়। মাথা গোঁজার একমাত্র ঠাঁই হারিয়ে তিনি চিন্তায় পড়ে যান। সেই ভাঙ্গা ঘরটির ভিডিও সাংবাদিক হাসিবুর রহমান রিজু ধারন করে সোসাল মিডিয়া প্রচার করেন। প্রচারের পর পরই নজরে আসে পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার) এর, তিনি বৃদ্ধার বাড়িতে ছুটে যান।

এবার সেই অসহায় বৃদ্ধ মহিলাকে ব্যক্তিগত উদ্যোগে বাড়ি তৈরী করে দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এস এম তানভির আরাফাত। এ সময় পুলিশ কর্মকর্তা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়া শহর লাগোয় হাটশ হরিপুর ইউনিয়নের শালদহ গ্রামের বাসিন্দা আমেরুন নেসা। বয়স প্রায় ৮০ ছুঁই ছুই। এক নাতী ছাড়া তিনকুলে আর কেউ নেই তার। সম্বল বলতে স্বামীর ভিটায় ভাঙাচোরা একটি দোচালা ঘর। স্বামপ্রতিক প্রলঙ্কারী ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তান্ডবে তার সেই ঘরটি ভেঙে পড়ে। পরে ফেসবুকে এ ব্যাপারে একটি পোষ্ট দেখতে পান কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এস এম তানভির আরাফাত। পরে তিনি ওই বৃদ্ধাকে একটি ঘর তৈরী করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

তিনি তাৎক্ষনিক খাদ্য সহয়তা দিয়ে মডেল থানার ওসি গোলাম মোস্তফাকে অর্থ দিয়ে ঘর তৈরির কাজ শুরু করতে বলেন। বড় একটি থাকার রুমের পাশাপাশি একটি বারান্দা ও সাথেই একটি টয়লেট নির্মাণ করা হয়েছে। পাশাপাশি থাকার জন্য একটি খাট, ফ্যান ও আলনাসহ অন্যান্য ফার্নিচার উপহার দিয়েছেন পুলিশ সুপার।
বুধবার সকালে পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত নিজে গিয়ে বৃদ্ধার কাছে ঘরটির চাবি হাস্তান্তর করেন। ঘর পেয়ে খুশি হয়ে বৃদ্ধা পুলিশ সুপারকে শুভেচ্ছা জানানো সহ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্তি পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান, আজাদ রহমান (সদর), আতিকুর রহমান আতিক(সদর সার্কেল), মডেল থানার ওসি গোলাম মোস্তফা, এস আই মোস্তাফিজুর রহমান, হাটশ হরিপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এম সম্পা মাহমুদ, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মিলন মন্ডল সহ আরো অনেকে। পুলিশ সুপার বলেন, পুলিশ জনগনের বন্ধু। আমরা বিধবা নিঃসন্তান আমিরুন নেছার সম্বল এক টুকরো ঘর নতুন করে গড়ে দিয়েছি। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে করোনা মহামারীতে সকলে দুরত্ব বজায় রেখে চলা সহ সরকারি বিধি নিষেধ মেনে চলার আহব্বান করেন।


  • 59
    Shares

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button