দেশজুড়ে

ঝালকাঠিতে মহাসড়কে চাঁদাবাজী বন্ধে অভিযান, অবৈধ টোলঘর ভাঙচুর


ঝালকাঠি প্রতিনিধঃ ঝালকাঠিতে মহাসড়কে চাঁদাবাজী বন্ধে বিশেষ অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। আজ শনিবার সকাল ১১টায় পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিনের নেতৃত্বে ঝালকাঠি-খুলনা আঞ্চলিক মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হয়। পুলিশ গাবখান সেতুর টোলপ্লাজায় গাড়ি থামিয়ে অতিরিক্ত টোল আদায় কিংবা চাঁদাবাজীর বিষয়ে চালকদের সাথে কথা বলেন। এর আগে পুলিশ শহরের পশ্চিম ঝালকাঠি যুবউন্নয়নের সামনে অবৈধ একটি টোলঘর ভেঙে ফেলে।

পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. দুলাল হাওলাদারের নেতৃত্বে কয়েকজন যুবক মহাসড়ক দিয়ে যাতায়াতকারী সকল যানবাহন থেকে পৌর টোলের নামে চাঁদা আদায় করতেন বলে অভিযোগ রয়েছে। জেলা প্রশাসকের নির্দেশে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাছবীর হোসাইন এর উপস্থিতিতে পুলিশ টোলঘরটি ভেঙে ফেলে। এদিকে ঝালকাঠিতে মহাসড়কে চাঁদাবাজী স্থায়ীভাবে বন্ধ করার জন্য বিশেষ অভিযান অব্যহত রাখবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিন।

জেলার মধ্যে কোথায় মহাসড়কে গাড়ি থামিয়ে বাসমালিক সমিতির লাইনম্যান, সুপারভাইজার বা শ্রমিক ইউনিয়নের নামে চাঁদা নিলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দেন পুলিশ সুপার। মহাসড়কে চাঁদাবাজী বন্ধে পুলিশের এ অভিযানের প্রশংসা করেছেন গাড়ির চালক ও যাত্রীরা। অভিযানে অন্যান্যের মধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. হাবীবুল্লাহ, মো. ছোয়াইব ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) এম.এম মাহমুদ হাসান, সদর থানার ওসি মো. খলিলুর রহমান ও ওসি অপারেশন মো. মুরাদ আলী উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিন বলেন, সরকার নির্ধারিত গাবখান সেতুর টোল ছাড়া রাস্তায় একটি গাড়িও কোন টাকা খরচ করবে না। আমাদের জেলায় কোন ভাবেই চাঁদাবাজী করতে দেওয়া হবে না। মহাসড়কে যানবাহন চলবে নির্ভয়ে। কেউ চাঁদা চাইলে পুলিশ জানতে পারলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেবে।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button