পবার হুজুরীপাড়া ইউনিয়নে বিএনপি নেতা মিলনের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

0
129

বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন খাদ্য সামগ্রী দেয়া অব্যাহত রেখেছেন। তিনি আজ শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পবার হুজুরীপাড়া ইউনিয়নে বিতরনের জন্য নেতাদের হাতে খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন। সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের নির্দেশক্রমে নির্বাচনী এলাকা রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনে নিজ উদ্যোগে এবং ব্যক্তিগত অর্থায়নে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন মিলন।

তিনি বলেন, লকডাউনে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান ছাড়া সকল প্রকার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, যানবাহন, সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও উন্নয়নমূলক কাজ বন্ধ থাকায় কর্মহীন পড়েছে সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ। এই সকল কর্মহীন মানুষের মধ্যে সামান্য হলেও খাদ্য সামগ্রী তুলে দেয়ার জন্য তিনি আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন বলে জানান তিনি। তাঁর এই চেষ্টা চলমান থাকবে বলে জানান। তিনি আরো বলেন, সরকার করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সম্পূর্নভাবে ব্যর্থ। আজ অবধী একটি হাসপাতালও পুরোপুরি প্রস্তুত নয়। অথচ করোনা ভাইরাস শুরু থেকে চিকিৎসা সেবা নিয়ে সরকার জনগণকে ধোকা দিয়েছে।

মিলন আরো বলেন, এখন সরকারীভাবে লকডাউন শিথিল করা হয়েছে। খুলে দেয়া হচ্ছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এরফলে করোনাই আক্রান্তের সংখ্যা আরো বেশী করে বাড়বে। এক কথায় মহামারী আকারও ধারণ করতে পারে বলে জানান তিনি। সরকারের এই সিদ্ধান্ত বলে দেয় জনগণের প্রতি তাদের কতটুকু মায়া, দায়িত্ব ও কর্তব্য। জনগণ মরলেও এই সরাকরের কোন কিছু যায় আসেনা। কারণ জনগণের ভোটের প্রয়োজন এই সরকারের হয়না। কিন্তু জনগণ এই দেড় মাসেই বুঝে গেছে এই সরকারের উন্নয়ন। এই সময়ের মধ্যেই সকল সেক্টরে হাহাকার পড়ে গেছে। গার্মেন্টস থেকে শুরু করে পরিবহণ ও অন্যান্য ব্যবসায়।

এখন এটা পরিস্কার বাংলাদেশকে উন্নয়নের রোল মডেল বলতে বলতে তলাবিহিন ঝুড়িতে পরিণত করেছে এই সরকার। না আছে জনগণের নিকট টাকা, না আছে ব্যাংকে টাকা। সব টাকা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও দোসরদের হাতে চলে গেছে। তারা টাকা নিয়ে বিদেশে পাচার করেছে। এখন দেশে কোন অর্থের তারুল্য নাই। এ অবস্থা চলতে থাকলে দেশের লক্ষ লক্ষ মানুষ অনাহারে মারা যেতে পারে বলে জানান মিলন।
সপুরাস্থ নিজ কার্যালয় থেকে পবার হুজুরীপাড়া ইউনিয়নের জন্য তিনি খাদ্য সামগ্রী প্রেরণ করেন। অত্র ইউনিয়ন বিএনপি’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাজদার রহমান এই খাদ্য গ্রহন করেন। এসময়ে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে খাদ্য সামগ্রী প্রতিটি বাড়িতে বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার জন্য নেতাদের অনুরোধ করেন তিনি। এছাড়াও করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত থাকতে সকলকে ঘরে থাকার পরামর্শসহ বার বার সাবান পানি দিয়ে হাত ধোয়ার আহবান জানান তিনি। সেইসাথে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে চলার জন্য এলাকাবাসীসহ দেশবাসীর প্রতি আহবান জানান মিলন।