সকাল ৭:৫২ শুক্রবার ২২শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

শ্রীনগরে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে নারী ইউপি সদস্য

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : এপ্রিল ১৭, ২০১৮ , ১১:৩৮ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : ঢাকা
পোস্টটি শেয়ার করুন

আরিফুল ইসলাম শ্যামল,শ্রীনগর,মুন্সীগঞ্জঃ শ্রীনগরে এক নারী ইউপি সদস্যের বাসত বাড়ি দখল করে নেওয়ায় পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। উপজেলার বাঘড়া ইউনিয়ন পরিষদের নারী সদস্য রাজিয়া সুলতানার স্বামী শহিদুল ইসলামের পত্রিক ১১শতক বাড়ি একই এলাকার হাজেরা ও নূরুল ইসলাম ওই সম্পত্তিত্বে ঘর উঠিয়ে দখল করে নেয়। কয়েকদিন পূর্বে রাজিয়া সুলতানার বেশ কিছু গাছ দখল কারীরা কেটে নেয়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ইউপি সদস্য রাজিয়া সুলতানার স্বামী শহিদুল ইসলামের ওই জায়গার মালিক। কিন্তু প্রতিপক্ষ হাজেরা গং ওই জায়গা ক্রয় সূত্রে মালিক বলে দখল করে নেয় এবং রাজিয়া সুলতানার বসত ঘরের চারদিকে ইট ও বালু দিয়ে আটকে দেয় ও তার ব্যবহৃত রান্না ঘর, টয়েলেট ও দখল করে নেয়। এব্যাপরে তিনি একটি পিটিশন মামলা করেন। মামলা করার কারনে তাকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করা হয়। ওই ইউপি সদস্য একাধিকবার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

গত ১২ এপ্রিল হাজেরা গংয়ের বিরুদ্ধে জোরপূর্বক গাছ কেটে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ দায়ের করেন। স্থানীয় সাবেক মেম্বার আঃ মালেক, প্রতিবেশী মোঃ মোর্শেদ শেখ সহ অনেকে বলেন, এ বিষয়ে একাধিক বিচার শালিস হয়েছে হাজেরা গং কোন কথা রাখেনি। তাছাড়া ইউপি চেয়ারম্যান নূরুল ইসলাম দুই পক্ষকে ডাকালে বিবাদী হাজেরা গংদের কেউই হাজির হননি।
ইউপি সদস্য রাজিয়া সুলতানা বলেন, আমার স্বামীর পৈত্রিক ও ক্রয় সূত্রে সাড়ে ১১ শতাংশের জমির মালিক। কিন্তু হাজেরা জাল দলিল উপস্থাপন করে ক্রয় সূত্রে মালিক দাবি করে আমার সম্পত্তি দখল করে নিয়েছে। আদালতে একাধিক মামলা চলমান অবস্থায় প্রায় ৮০ হাজার টাকার গাছ কর্তন করে।

হাজেরা বেগম বলেন, আমি এই সম্পত্তি ক্রয় সূত্রে মালিক। কোন জবরদখল করা ঘটনা ঘটেনি। গ্রাম্য শালিসের কথা আমি মানলেও রাজিয়া সুলতানা মানেনি।

শ্রীনগর থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ফিরোজ জানান, গাছ কাটার সত্যতা পাওয়া গেছে। আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Comments

comments