স্বাস্থ্য

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা কি ২ এপ্রিল হবে?

  • 12
    Shares

দেশের ৩৭টি সরকারি মেডিকেল কলেজের এমবিবিএস কোর্সের প্রথম বর্ষের (২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষ) ভর্তি পরীক্ষা আগামী ২ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এ বছরের ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য রেকর্ডসংখ্যক এক লাখ ৮২ হাজার ৮৭৪ জন শিক্ষার্থীর আবেদন জমা পড়েছে। স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতর ইতিমধ্যেই সুষ্ঠুভাবে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণের জন্য সর্বাত্মক প্রস্তুুতি গ্রহণ শুরু করেছে।

গত বছর পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ৭২ হাজারেরও বেশি। রাজধানীসহ সারাদেশের ২৭টি ভেন্যুতে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। কিন্তু এ বছর পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় ৫৪টি ভেন্যুতে অর্থাৎ দ্বিগুণ সংখ্যক ভেন্যুতে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে।

গত কয়েকদিন ধরে করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষায় আগের তুলনায় দ্বিগুণের বেশি সংখ্যক রোগী শনাক্ত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে মেডিকেল ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের অনেকেই নির্ধারিত ২ এপ্রিল ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে নাকি পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে পরবর্তীতে অন্য কোনো দিন গ্রহণ করা হবে, তা জানতে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরে যোগাযোগ করেছেন।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি এ বছর মেডিকেল কলেজে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে অনলাইনে আবেদন করেছেন এমন একদল শিক্ষার্থী বর্তমান করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে মেডিকেল কলেজের এমবিবিএস প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা পেছানোর দাবি জানিয়ে চিঠি দিয়েছে। তারা রমজানের ঈদের পর পরীক্ষা গ্রহণের দাবি জানায়। দুই-তিনদিন আগে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে মেডিকেল ভর্তি বিষয়ক এক সভাতেও বিষয়টি আলোচনায় উঠে আসে।

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা ও জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. আহসান হাবিবের কাছে শিক্ষার্থীদের দাবির বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা পেছানোর দাবি জানিয়ে অধিদফতর ও মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছিল। কিন্তু পরীক্ষা যথাসময়ে নির্ধারিত দিনে অর্থাৎ ২ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় প্রস্তুুতি দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে।

পরিচালক বলেন, পরীক্ষার্থীরা এক ঘণ্টার ভর্তি পরীক্ষা দেবে। কিন্তু রেকর্ডসংখ্যক শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিতব্য এ পরীক্ষা গ্রহণের জন্য তাদের দিনরাত কষ্ট করতে হচ্ছে। করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ হলে সরকারের শীর্ষমহল থেকে পরীক্ষা গ্রহণের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে। তবে এখনও পর্যন্ত পরীক্ষা পেছানোর কোনো চিন্তা নেই বলে তিনি জানান।

উল্লেখ্য, দেশে বর্তমানে সরকারিভাবে পরিচালিত মেডিকেল কলেজের সংখ্যা ৩৭টি। এগুলোতে মোট আসন সংখ্যা চার হাজার ৩৫০। এ বছর এক লাখ ২২ হাজার ৮৭৪টি আবেদনের হিসেবে আসনপ্রতি লড়বেন ২৮ জনের বেশি।


  • 12
    Shares

Related Articles