মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দর সমূহে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত

0
23

মোঃসোহেল, মোংলা প্রতিনিধিঃ উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরা,খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠী,পিরোজপুর, বরগুনা,পটুয়াখালী,ভোলা, বরিশাল, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহ ০৭ নম্বর বিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় আম্ফান’র কারণে মোংলা সমুদ্র বন্দরকে সোমবার বিকেলে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অফিস। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সাগর ও সুন্দরবন সংলগ্ন নদ নদী উত্তাল থাকলেও স্বাভাবিক আবহাওয়া বিরাজ করছে মোংলাসহ সুন্দরবনসহ আশপাশ উপকূলীয় এলাকা জুড়ে।

মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রাহাত মান্নান জানান, ঘূর্নিঝড় মোকাবেলায় সব ধরনের প্রস্তুতি ও সতর্কতামুলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। খোলা হয়েছে পৃথক কন্ট্রোল রুম। উপজেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মিলিয়ে মোট ১০৩টি সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ময়লা আর্বজনা পরিস্কার করে ব্যবহার উপযোগী করে তোলার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় বৃদ্ধি পাওয়ায় মোংলা বন্দরে পণ্য বোঝাই-খালাস ও পরিবহণের কাজ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে । মোংলা বন্দরে কয়লা ও ক্লিংকারবাহীসহ মোট ১১টি বিদেশী বাণিজ্যিক জাহাজ অবস্থান করছে। বন্দরের হারবার মাষ্টার কমান্ডার ফখর উদ্দিন জানান, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের কারণে জরুরী কন্ট্রোল রুম খুলেছে বন্দর কর্তৃৃপক্ষ। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাষ্টার কমান্ডার ফখর উদ্দিন সম্ভাব্য ঝড় মোকাবেলায় সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানান, অবস্থা বুঝে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এবং সিপিপি স্বেচ্ছাসেবক দলসহ প্রশাসনের সদস্যদেরাও মাইকিং করে জনসাধারণকে সাইক্লোন শেল্টারে গিয়ে আশ্রয় নিতে বলা হয়েছে।