খুলনা

ইবি থানায় ১০৭টি বাল্যবিবাহ বন্ধ

রেজা আহাম্মেদ জয়: কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রতন শেখের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে নবম শ্রেণীর কিশোরী। তিনি ইবি থানায় দায়িত্ব পেয়ে প্রায় দেড় বছরে ১০৭টি বাল্যবিবাহ বন্ধ করতে সক্ষম হয়েছেন। এছাড়াও এলাকা থেকে মাদক মুক্ত করতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। যারা মাদকের সাথে জড়িত তাদেরকে বিভিন্ন সময়ে ছদ্দবেশে আটক করে জেল হাজতে প্রেরন করেন।

এ থানায় দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে এলাকার অসহায় মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। যে সকল অসহায় পরিবার অর্থের অভাবে মেয়েকে লেখাপড়া করাতে পারে না, তারা বাধ্য হয়ে মেয়েকে অল্প বয়সে(বাল্যবিবাহ) বিয়ে দিতে গেলে সে সকল মেয়েদের লেখাপড়ার সুযোগ করে দিয়েছেন। গ্রামের বিভিন্ন বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে লেখাপড়ার উৎসাহ জাগিয়ে তোলেন।

এছাড়াও বাল্যবিবাহ বন্ধের সময় যে সকল অভিভাবক না বুঝে তার সন্তানকে বিয়ে দিতে চাই তাদেরকে সঠিক পথ দেখান। মঙ্গলবার ৫মার্চ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা ইবি থানাধীন ঝাউদিয়া ইউনিয়নের মাজপাড়া গ্রামের শফিকুল ইসলামের মেয়ে নবম শ্রেণীর ছাত্রীর বিবাহের প্রস্তুতি চলছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে ৩৩৩নং এ কল করে একজন ব্যক্তি, বিষয়টি সম্পর্কে সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসারকে অবগত করলে তিনি মহিলা অধিদপ্তর মর্জিনা খাতুন কে ঘটনাস্থলে যাওয়ার নির্দেশ দেন। ম

র্জিনা খাতুন ওই বাড়িতে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করতে ব্যর্থ হন। এক পর্যায়ে ইবি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রতন শেখ বিষয়টি জানতে পেরে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নেন এবং বাল্যবিবাহ থেকে কিশোরীকে রক্ষা করেন। পরে ঘটনাস্থলে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুবায়ের হোসেন চৌধুরী উপস্থিত হয়ে বিয়ে বন্ধ করে দেন এবং ১৮ বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত তাকে বিয়ে দেবেন না তার অভিভাবকদের কাছ থেকে মুচলেকা নেন। একই সাথে বাল্য বিয়ের আয়োজন করায় মেয়ের বাবাকে জরিমানা করা হয়েছে।

এ ঘটনায় পুলিশ সত্যতা স্বীকার করে বলেন মেয়েটি নবম শ্রেণীর ছাত্রী, তার বয়স আঠারো বছর না হওয়ায় বিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। উক্ত কিশোরী মেয়েটির লেখাপড়া করার অনুরোধ করেন, অভিভাবকেরা লেখাপড়ার খরচ যোগাতে না পারলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে লেখাপড়ার করার সুযোগ দিবেন বলে জানা যায়। ওসি রতন শেখ এ বিয়ে বন্ধের মধ্যে দিয়ে মোট ১০৭টি বাল্যবিবাহ বন্ধে দৃষ্টান্ত ভুমিকা রেখেছেন।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.