লাইফস্টাইল

করোনার আশংকা কমাতে প্রতিদিন জীবাণুমুক্ত করবেন যে জিনিসগুলো


করোনা মহামারি জেঁকে বসেছে বিশ্বে। যেকোনও মুহূর্তে পাশের মানুষের কাছ থেকে আপনার শরীরেও থাবা বসাতে পারে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস। তাই বাড়ির বাইরে পা ফেলুন ভেবেচিন্তে। এই পরিস্থিতিতে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকা ছাড়া বিকল্প কোন পথ নেই। তাই নিজেকে পরিচ্ছন্ন রাখুন সবসময়। পাশাপাশি নিজেকে ভাইরাস সংক্রমণমুক্ত রাখতে বাড়ির কিছু গুরুত্বপূর্ণ জিনিস রাখুন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন। আপনার জন্য এ বিষয়ে রইল গুরুত্বপূর্ণ টিপস।

স্মার্টফোন ছাড়া প্রায় অচল আমরা সবাই। ঘুম থেকে জেগে প্রথম আমরা স্মার্টফোনে চোখ রাখি। এরপর ঘুমাতে যাওয়া পর্যন্ত সব সময়ই নজর থাকে এই ফোনের উপর। মেসেজ, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিচরণের একমাত্র মাধ্যম এই স্মার্টফোন। বাইরে বের হলেও কাছে রাখি ফোন। করোনার এই সময়ে রাস্তায় বের হওয়ার সময় নিজেরা মাস্ক, গ্লাভস দিয়ে ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকার চেষ্টা করি। কিন্তু মোবাইলটিও তো ভাইরাস বহন করতে পারে! তাই বাইরে বের হওয়ার সময় পারলে পাতলা প্লাস্টিক ব্যাগে ঢুকিয়ে নিন ফোনটি। বাড়ি ফেরার পর ভাল করে স্মার্টফোনটি পরিষ্কার করে নিন। ব্যবহারের পর হাত ধুয়ে নেওয়া ভালো অভ্যাস।

বাড়ির সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত সামগ্রীর মধ্যে অন্যতম রিমোট। তাই রিমোট যতটা সম্ভব পরিষ্কার করুন। ব্যবহারের আগে এবং পরে ওয়েট টিস্যু দিয়ে মুছে নিতে পারলে ভালো।

বাড়িতে ফিরেই আমরা দরজার কলিংবেলে হাত দিচ্ছি। তার ফলে সরাসরি ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কা বেড়ে যায়। তাই বেল বাজানোর পরে ভাল করে তা জীবাণুমুক্ত করুন। এতে ভাইরাস সংক্রমণের আশংকা কিছুটা হলেও কমবে।

বাড়ির বাইরে বের হবেন আর মেক আপ করবেন না, তা কি হয়? তবে মেক আপ ব্রাশের মাধ্যমে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার যথেষ্ট আশংকা রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে তাই মেক আপ ব্রাশের পরিচ্ছন্নতার দিকে নজর দিতে হবে। সপ্তাহে অন্তত একবার মেক আপ ব্রাশ পরিষ্কার করুন।

রান্নাঘর জীবাণুমুক্ত রাখা অত্যন্ত জরুরি। তাই রান্নাঘরের পরিচ্ছন্নতার দিকে বিশেষ নজর দিন। বিশেষত রান্নাঘরের মেঝে ও সিংক পরিচ্ছন্ন থাকছে কিনা, তা খেয়াল রাখুন। থালা-বাসন মাজার স্পঞ্জ কিংবা মাজুনি নিয়মিত পরিষ্কার রাখা ভীষণ প্রয়োজন।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button