রাজধানী

সাবেক সেনা প্রধানের ছেলে মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালানোতে দুর্ঘটনায় নিহত ২


সাবেক সেনা প্রধান আজিজ আহমেদের ছেলে স্বাধীন আহমেদ মদ্যপ অবস্থায় বেপরোয়া গাড়ি চালানোর কারনে রাজধানীর মহাখালী রাওয়া ক্লাবের সামনে দুই যুবকের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) ভোরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- উমর আইমান ও ফাহিম আহমেদ রায়হান। নিহত উমর আইমানের বাবা একজন অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা বলে জানা গেছে। কাফরুল থানার এসআই আনিসুর রহমান এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

দুর্ঘটনার শিকার ওই গাড়িতে রাইসা এবং দিয়া তরুণী ছিল। তারাও মদ্যপ অবস্থায় ছিল। দুই তরুণী স্বাধীন আহমেদের বান্ধবী বলে জানাগেছে।

জানা গেছে, উমর আইমান ও ফাহিম আহমেদ রায়হান একটি প্রাইভেটকারে করে কোথাও যাচ্ছিলেন। তখন মহাখালী রাওয়া ক্লাবের সামনে গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার আইল্যান্ডের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে ঘটনাস্থলে দুইজন নিহত হন।
দুর্ঘটনার সময় সাবেক সেনাপ্রধান আজিজের ছেলে স্বাধীন আহমেদ গাড়ি চালাচ্ছিলেন এবং ওই সময় তার সাথে মদ্যপ অবস্থায় তার দুইজন তথাকথিত মেয়ে বান্ধবী রাইসা এবং দিয়া ছিল।

এসআই আনিসুর রহমান বলেন, মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে মহাখালীর সামনের রাস্তায় ঢাকা মেট্রো ঘ -১৩-৩৯৭৯ নম্বরের জিপ গাড়ি আইল্যান্ডের সাথে ধাক্কা লেগে এই দুর্ঘটনা ঘটে এবং ঘটনাস্থলেই দুইজন মারা যায়। মূলত সাবেক সেনা প্রধান আজিজ আহম্মেদের ছেলের মদ্যপ অবস্থায় বেপরোয়া গাড়ি চালানোর কারনেই দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনার শিকার ওই গাড়িতে মোট সাত জন যাত্রী ছিল । তার মধ্যে ঘটনাস্থলেই দুইজনের মৃত্যু হয়।দুর্ঘটনায় মৃত ব্যক্তিরা হলেন ফাহমিদ আহম্মেদ রাইয়ান (১৯),পিতা মৃত- ইলিয়াস আহম্মেদ, বাড়ী- ১৭, রোড নং- ০৭, নিকুঞ্জ -১, খিলক্ষেত, ঢাকা, গ্রাম – ছাগলনাইয়া, থানা- ফেনী সদর , জেলা- ফেনী এবং ২। মোঃ ওমর আয়মান (২০) , পিতা- কর্নেল অবঃ ওমর ফারুক, মাতা- শাহজাদি নাসিমা, বাসা নং-৪৩/ই, রোড- ০৮, ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট, থানা- ভাষানটেক।

সুত্রমতে, সাবেক সেনা প্রধান আজিজ আহম্মেদের বখাটে ছেলে স্বাধীন আহমেদ নেশাআসক্ত, নিয়মিত মদ্যপান ও উচ্ছৃঙ্খল জীবন যাপনে অভ্যস্ত ছিলেন। মদ্যপায়ী ৫ জন বন্ধু ও ২ জন বান্ধবীসহ মাতাল অবস্থায় ভোরে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর সময় ভয়াবহ দুর্ঘটনায় পতিত হয় । বিভিন্ন মাধ্যমে প্রকাশিত সিসি টিভি ফুটেজে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়।

আজিজ আহমদের ২য় স্ত্রীর একমাত্র ছেলে স্বাধীন । পিতা মাতার অতি আদরে বখে যাওয়া এই সন্তান পিতার চাকরিকালে মূর্তমান আতংক হিসেবে সেনানিবাস এবং সেনানিবাসের বাইরের এলাকায় সুপরিচিত ছিল । স্বাধীন মূলত তার বাবা সাবেক সেনাপ্রধানের আস্কারাতেই বেপরোয়া জীবন যাপনে অভ্যস্ত হয়ে ওঠে।

রাজধানীর গুলশান ও বনানীর বিভিন্ন নাইট ক্লাবে মিড নাইট পার্টি উদযাপন, মেয়ে আসক্তি, মাদক সেবন সহ, নিষিদ্ধ অসামাজিক নৈশ জীবনে ছিল স্বাধীনের অবাধ বিচরণ। সাবেক সেনাপ্রধানের ছেলে পিতার ক্ষমতায় সেনানিবাস এলাকায়ও উশৃংখল জীবন যাপনে অভ্যস্ত ছিল। সে নিত্য নতুন কিশোর গ্যাং তৈরি এবং উক্ত গ্যাং এর মাধ্যমে সন্ত্রাসী , চাঁদাবাজিতে জড়িত ছিল বলে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার নিকট অনেক তথ্য প্রমান রয়েছে। ছোট ছেলের বেপরোয়া জীবন যাপন সম্পর্কে সকলে জানলেও সাবেক সেনাপ্রধানের ছেলের পরিচয়ে কেউ তৎকালীন মুখ খোলেননি।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button