ভোর ৫:৪২ শনিবার ১৬ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

‘যদি প্রতিবাদ না করতাম তাহলে আ. লীগ থাকত না’

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : মার্চ ১৫, ২০১৮ , ১১:০৭ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : ঢাকা
পোস্টটি শেয়ার করুন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ করে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার সময় যদি প্রতিবাদ না করতাম তাহলে আপনি ও আওয়ামী লীগ থাকত না। কৃতজ্ঞতা নেই। তিনি এমন একজন মানুষ বাপের হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলেও তাদের সম্মান করেন না।বুধবার সন্ধ্যায় ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের কাইচাপুর আলিম মাদরাসা প্রাঙ্গণে স্থানীয় কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেন, ভোট ছাড়া এমপি বাপ ছাড়া সন্তানের মতো। ভোট ছাড়া এমপি হওয়া অন্যায় কাজ।

 

কাদের সিদ্দিকী বলেন, শেখ হাসিনা সেদিন বলেছেন- জিয়াউর রহমান মুক্তিযোদ্ধার ওপর গুলি চালিয়েছেন। তিনি প্রশ্ন রাখেন, আপনি কোথায় ছিলেন? আপনি তো যুদ্ধ করেন নাই।তিনি আরও বলেন, যারা মারার ষড়যন্ত্র করে সে রকম নেতাদের সম্মান করে। মুক্তিযুদ্ধে পাকবাহিনী যত লোক মারতে পারেনি, ইনুদের গণবাহিনী তার চেয়েও বেশি লোক হত্যা করেছে। তিনি এখন হাসিনার মন্ত্রী। আমি ভালো মানুষের দল করতে চাই।কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ সভাপতি বলেন, আজ দেশের অবস্থা। খালেদা জিয়াকে জেলে দিছে। তার সাড়ে ৭৩ বছর বয়স। বাসাই তো সাব-জেল করা যেত। তিনি প্রধানমন্ত্রী ছিলেন।

 

 

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনা বরিশালে বলেছেন- চুরির বিচার হইছে। দুই কোটি টাকা চুরির অভিযোগে জেলে দিলেন। আর আপনি দুই হাজার কোটি টাকা চুরি কইরা বুক ফুলাইয়া হাঁটতাছেন। দেশের মানুষ তাকে জেলে দেয়া পছন্দ করে নাই। পছন্দ করত যদি দুই হাজার, ১০ হাজার, ২০ হাজার কোটি টাকার বিচার করা হতো। তার মুখে এসব কথা শোভা পায় না। সেদিন বলছেন- বিএনপি চোরের পক্ষে আন্দোলন করতেছে।’

 

 

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, আপনারা যা করতাছেন তা কি সাধুদের পক্ষে? বিএনপি বলে আওয়ামী লীগ চোর। আওয়ামী লীগ বলে বিএনপি চোর। তাহলে দেশে কি চোরে চোরে চুলাচুলি করতাছে? আমরা সেখান থেকে মুক্তি চাই। এ রকম হতে হলে পুরুষের শাসন দরকার। সেখান থেকে মুক্তি চাইলে গামছা ধরেন। যত দিন বেঁচে থাকব অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলব।ইউনিয়ন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আজিজুল হক তালুকদারের সভাপতিত্বে জনসভায় হাবিবুর রহমান তালুকদার বীরপ্রতীক, ইকবাল সিদ্দিকী, শফিকুল ইসলাম, অধ্যক্ষ এম আব্দুর রশিদ, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

Comments

comments