অর্থনীতি

পুঁজিবাজারে সূচকের বড় উত্থান


সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার (২ মে) দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) মূল্যসূচকের বড় উত্থান হয়েছে। সেইসঙ্গে বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণ। ডিএসইতে লেনদেন ১৪’শ কোটি টাকা ছাড়িয়ে গেছে।

এদিন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন শুরু হয় বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমার মধ্য দিয়ে। এতে প্রথম মিনিটের লেনদেনে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২২ পয়েন্ট বেড়ে যায়।

লেনদেনের শেষ পর্যন্ত বেশকিছু প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার প্রবণতা অব্যাহত থাকে। ফলে দিনের লেনদেন শেষে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ৩৭ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৫১৭ পয়েন্টে উঠে এসেছে।

প্রধান মূল্যসূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচকের। আগের দিনের তুলনায় সূচকটি ১২ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ১২৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আর ডিএসইর শরিয়াহ্ সূচক দশমিক ৫ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ২৫৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইতে দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে ১৮০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট। বিপরীতে দাম কমেছে ১০৪টির এবং ৭৭টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

মূল্যসূচকের উত্থানের পাশাপাশি ডিএসইতে বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণ। দিনভর বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৪০৬ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ১ হাজার ১৭২ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। সে হিসেবে লেনেদেন বেড়েছ ২৩৪ কোটি ৮ লাখ টাকা।

এর মাধ্যমে তিন মাসের মধ্যে ডিএসইতে সর্বোচ্চ লেনদেন হয়েছে। এর আগে চলতি বছরের ২৫ জানুয়ারি আজকের চেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছিল। ওই দিন লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৫৮৫ কোটি টাকার।

টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। কোম্পানিটির ২৭৭ কোটি ৩৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা প্রভাতী ইন্স্যুরেন্সের ৭৮ কোটি ৯২ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। ৩৮ কোটি ২৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ন্যাশনাল ফিড।

এছাড়া ডিএসইতে লেনদেনের দিক থেকে শীর্ষ ১০ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- বেক্সিমকো ফার্মা, লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্স, সামিট পাওয়ার, সিটি জেনারেল ইন্স্যুরেন্স এবং ম্যাক্সন স্পিনিং।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্য সূচক সিএএসপিআই বেড়েছে ১২৮ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৩১ কোটি ৭৭ লাখ টাকা। লেনদেনে অংশ নেয়া ২৬৭টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৪৫টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৮২টির এবং ৪০টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।


Related Articles