রাত ২:৪৬ বুধবার ২০শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কালো তালিকাভুক্ত হচ্ছে অর্ধশতাধিক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান | ‘আমার বিরুদ্ধে অনুসন্ধান চালালে অনেক এমপি-মন্ত্রীর যাবজ্জীবন দণ্ড হবে’ | লবণ নিয়ে গুজব ছড়ালে কঠোর ব্যবস্থা: প্রেস নোট | দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী | শার্শায় গুজব রটিয়ে বেশী দামে লবন বিক্রি করায় ৩ অসাধু লবণ ব্যবসায়ী আটক | এক কেজির বেশি লবণ কিনলেই আটক করছে পুলিশ | সিরাজদিখানে অতিরিক্ত দামে লবন কেনা-বেচার দায়ে ৬ ক্রেতা বিক্রেতা আটক | চাটমোহরে বিডি ক্লিন’ সংগঠনটির স্বেচ্ছায় আবর্জনা পরিষ্কার | ইলিশায় প্রতিবন্ধীদের সিআরএ রিপোর্ট বৈধকরণ সভা অনুষ্ঠিত | তালতলীতে বেশী দামে লবণ বিক্রি করায় ৩ ব্যবসায়ীকে জরিমানা, একটি সিলগালা |

পাবনার ঈশ্বরদীতে দুই স্কুল ছাএীকে অাটকে রেখে রাত ভর ধর্ষণ

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : মার্চ ১২, ২০১৮ , ১১:৪৩ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : রাজশাহী
পোস্টটি শেয়ার করুন

মামুনুর রহমান : ঈশ্বরদীর সাহাপুর ইউনিয়নের দীঘা গ্রামের দুই স্কুল ছাত্রীকে রাতভর ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।  এরা আওতাপাড়ার নূরজাহান বালিকা বিদ্যা নিকেতন এ্যান্ড কলেজের সপ্তম ও অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। সোমবার দুপুর ১২টায় ঈশ্বরদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ধর্ষিত দুই ছাত্রী ও তাদের অভিভাবকরা অভিযোগ দিতে এলে এই ধর্ষণের তথ্য জানা যায়।

 

এসময় ধর্ষিতরা সাংবাদিকদের জানায়,পার্শ্ববর্তী বাঁশেরবাদা উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই দিন ব্যাপী শতবর্ষ উৎসব শেষে বাড়ি ফেরার সময় পূর্ব পরিচিত রমজান ও রনি বেড়ানোর কথা বলে তাদের তুলে নিয়ে রাতভর একটি বাড়িতে আটকে রেখে ধর্ষণ করে। ধর্ষিতারা আরো জানায়, রবিবার শতবর্ষ উৎসবের দ্বিতীয় দিনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান দেখার জন্য তাদের স্কুলের সকল ছাত্রী বাঁশেরবাদা উচ্চ বিদ্যালয়ে যায়।বিকেল ৩টার দিকে বিরতি হলে এই দুই ছাত্রী রমজান ও রনির সাথে অটোতে করে বেড়াতে বের হয়।অটো বিভিন্ন রাস্তায় ঘুরে-ফিরে সন্ধ্যার অন্ধকার হলে গড়গড়ি গ্রামের একটি ফাঁকা বাড়িতে ওদের নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সারারাত আটকে রেখে দুই ধর্ষক ওই ছাত্রীদের ধর্ষণ করে। ভোরের দিকে এই কথা কাউকে না জানানোর কথা বলে রমজান ও রনি ধর্ষিতাদের বাড়ি হতে বের করে দেয়। এসময় তারা অনেক পথ পায়ে হেঁটে সকাল আটটার দিকে বাড়ি পৌঁছায়।

 

পরিবারের লোকজন সারারাত এদের খোঁজ করেও না পেয়ে বিপর্যস্থ ছিল। পরিবারের পক্ষ হতে সারারাত কোথায় ছিল জানতে চাইলে ধর্ষিতা ছাত্রীরা সকল ঘটনা জানিয়ে দেয়। পরে উভয় পরিবারের পক্ষ হতে এলাকার সাহাপুর ইউপি’র মেম্বার শামসুল প্রামাণিককে বিষয়টি জানালে মেম্বার ধর্ষিতা ও পরিবারের লোকজনদের নিয়ে অভিযোগ দেয়ার জন্য পুলিশের ঈশ্বরদী সার্কেলের অফিসে নিয়ে আসে। এসময় মেম্বার শামসুল ও এলাকার লোকজন জানান, ধর্ষকদের বাড়ি গড়গড়ি গ্রামে। রমজানের বাবার নাম সিরাজুল ইসলাম মনা এবং রনির বাবার নাম মনিরুল ইসলাম।সিরাজুল ইসলাম মনা আওতাপাড়া হাটে ইজারাদারের খাজনা তোলার কাজ করে।

 

এসময় উপস্থিত এলাকাবাসীরা জানান, উভয় ধর্ষিতার বাবাই দিন দরিদ্র। এদের মধ্যে একজনের বাবা মোস্তাক প্রামানিক পেশায় অটো ভ্যানচালক এবং অপরজন আবলু প্রামাণিক পেশায় দিন মজুর। এব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক জানান, ঘটনা জানার সাথে সাথে পুলিশী কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ধর্ষিতাদের ডাক্তারী পরীক্ষার ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

Comments

comments