দেশজুড়ে

বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ১৪৩ জন উৎপাদন কর্মী হিসেবে নিয়োগের দাবি

  • 104
    Shares

মোঃ আফজাল হোসেন, ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি: বড়পুকুরিয়া কয়লা ভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের তৃতীয় ইউনিটে ১৪৩ জন উন্নয়ন কর্মী হিসেবে তারা কাজ করেছেন। ৩য় ইউনিট নির্মাণ হওয়ার পর শ্রমিকরা কর্মহীন হয়ে পড়েছে। বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র ৩য় ইউনিট আন্দোলন পরিচালনা কমিটি ২০১৭ সালের ২৬ ডিসেম্বর থেকে নিয়োগের দাবিতে তারা নানা রকম আন্দোলন করে আসছে।

কর্তৃপক্ষ আশ্বাস দিলেও এখন পর্যন্ত ১৪৩ জন উন্নয়ন কর্মীর ভাগ্যে জোটেনি চাকুরী। বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র আন্দোলন পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ হাবিবুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবু সাঈদ ৩য় ইউনিটের উন্নয়ন কর্মীরা গত ২৬ অক্টোবর ২০১৭, ০৯ নভেম্বর ২০১৭ এবং ০৮ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং তারিখে উন্নয়ন কর্মীদের উৎপাদন কর্মী হিসেবে নিয়োগের দাবিতে এ সময় প্রকল্প পরিচালক হারবিক ইলেকট্রিক কোম্পানী লিমিটেড বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র ৩য় ইউনিট বরাবর একটি আবেদন করেন। কিন্তু এদিকে ১৪ মার্চ ২০১৮ ইং তারিখে আন্দোলন পরিচালনা কমিটির সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক তৎকালীন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী ও বর্তমান সংসদ সদস্য এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি এ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার (এমপি) তাদের আবেদনটিতে মানবিক দিক বিবেচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সুপারিশ করেন। কিন্তু গত ৩ বছর অতিবাহিত হলেও ১৪৩ জন শ্রমিদের নিয়োগের ব্যাপারে বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ কোন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

তারা নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ করে রেখেছে বলে জানিয়েছেন। এদিকে আন্দোলন পরিচালনা কমিটির নেতৃবৃন্দ ঢাকায় বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান সহ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সাক্ষাতও করেছেন। তাদের নিয়োগ হবে বলেও জানিয়েছিলেন। কিন্তু অদ্যবধি আজ পর্যন্ত তাদের নিয়োগের বিষয়ে কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। মাননীয় সংসদ সদস্যের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে সমস্ত আন্দোলন তারা বন্ধ করে দিয়েছেন। তারা আন্দোলন ছাড়াই বিষয়টি সমাধা চান। করোনা ভাইরাসের কারণে তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রকে করোনামুক্ত রাখার জন্যে তাদের সংগঠন গত দেড় মাস ধরে জীবাণুনাশক স্প্রে করে আসছেন।

সংগঠন বলছেন তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রকে সব রকম সহযোগিতা করা হবে। বর্তমান ১৪৩ জন শ্রমিকের পরিবার অনাহারে অদ্যাহারে দিনযাপন করছে। তাদের কাজ নেই, চাকুরী নেই, তারা তাদের ছেলেমেয়েদেরকে এবং পরিবার পরিজনদেরকে অর্থনৈতিক কারণে চালাতে পারছে না। বর্তমান তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উৎপাদন কর্মীর চাহিদা থাকা সত্ত্বেও কর্তৃপক্ষ নিয়োগের কোন প্রক্রিয়া করছে না। বিভিন্ন দপ্তরে সংগঠনের নেতারা ধন্যা দিয়েও তারা কোন সুরাহা করতে পারছে না। তাই জননেত্রী দেশরত্ম মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এই তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে নিয়োগ না পেলে আগামীতে পরিবার পরিজন নিয়ে নিয়োগের দাবিতে আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবেন।

এদিকে আন্দোলন পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাবিবুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবু সাঈদ সাংবাদিকদের জানান, বহু আন্দোলন করেছি, আশ্বাসও দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সব কিছু কেন যেন বন্ধ হয়ে যায়। আমরা ন্যায় সঙ্গত দাবি নিয়ে আন্দোলন করেছি। স্থানীয় সংসদ সদস্য আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে সব আন্দোলন প্রত্যাহার করে নিয়েছি, এখন দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। আমরা জ্বালানি মন্ত্রণালয় পেট্রো বাংলা চেয়ারম্যান সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।


  • 104
    Shares

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button