দেশজুড়ে

শ্রীনগরে ছাত্রী ধর্ষণের চিত্র ফেসবুকে ভাইরাল করে দিল ধর্ষক

  • 2.8K
    Shares

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: শ্রীনগরে এক স্কুল ছাত্রীর (১৬) ধর্ষণের চিত্র ফেসবুকে ভাইরাল করে দিয়েছে ধর্ষক শান্ত (২৪)। ধর্ষক শান্ত উপজেলার শ্যামসিদ্ধি ইউনিয়নের সেলামতি হাজী বাড়ির হাসেম খলিফার ছেলে। ফেসবুকে ঘটনাটি ভাইরাল হওয়ার পরে ওই ছাত্রীর পরিবার জানতে পারে। পরে মেয়েটি ঘটনার বিষয়টি পরিবারের কাছে ঘটনা ঘটনা খুলে বললে। এতে শান্ত ক্ষিপ্ত হয়ে গত রোববার সন্ধ্যার দিকে প্রায় ২০/২৫ জনের একটি গ্রুপ দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে ওই ছাত্রীর বাড়িতে হামলা চালানোর চেষ্টা করে। পরে এলাকাবাসী ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতায় শ্রীনগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলে শান্ত ও তার লোকজন চাইনিজ কুরাল ও লাঠিসোঠা ফেলে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর বাবা অটো চালক সোমবার শ্রীনগর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ধর্ষক শান্ত এলাকায় কোনও কাজকর্ম করেনা। সে এলাকায় মাদক সেবী ও বখাটে হিসেবেই পরিচিত। এই অপকর্মের ঘটনা জানাজানি হলে রোববার সন্ধ্যায় শান্তর ও তার বড় ভাই মাসুদের (৩০) নেতৃত্বে সহযোগি সেলামতি এলাকার আজিম (২৭), আবু বখর (২৮), ইয়ামিন (২৫), আক্তার (২২), সালাউদ্দিন (৩০), ওমর ফারুক (২২), লিটন (৩০), নাজিম (২২), রায়হান (২০), রিফাত (২৮), ইমরান (১৮), মহিন (২০), স্বাধীন (৩০), সাগর (২৪), মিরাজ (১৯), শরীফ (২২) সহ প্রায় ২৫/৩০ জনের একটি দল ওই ছাত্রীর বাড়িতে হামলা চালানোর চেষ্টা চালায়। পরে শ্রীনগর থানার পুলিশ ঘটনা স্থলে আসলে তারা পালিয়ে যায়। ধর্ষণের স্বীকার ওই ছাত্রী স্থানীয় বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল জানায় স্থানীয়রা। এ ঘটনায় এলাকায় চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।

ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত ১০/১২ দিন আগে রাতের আধাঁরে শান্ত জানালা ভেঙ্গে ঘরে ওই ছাত্রীর ঘরে প্রবেশ করে। ছাত্রীকে ঘরে একা পেয়ে হাত বেঁধে ধর্ষণ করে ও ধষর্ণের চিত্র মোবাইল ফোনে ধারণ করে রাখে শান্ত। এ বিষয়ে মুখ খুললে তাকে ও তার বাবাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। কয়েকদিন পরে ধর্ষণের ভিডিও ছেড়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে শান্ত তাকে আবার কুপ্রস্তাব দিতে থাকে। লোকলজ্জা ও হুমকির কাউকে বলেনি। পরে গত ৪/৫ দিন আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধষর্ণের চিত্র ছড়িয়ে পরলে তার পরিবার জানতে পারে। পরে ঘটনাটি সে পরিবারকে খুলে বলে। পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় ধর্ষক শান্তর সাথে যোগাযোগ করেও তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. হাকিম খানের কাছে এবিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। ধর্ষণের চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে শান্ত চরম অন্যায় করেছে। ভোক্তভোগী ছাত্রীর পরিবারকে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য পরামর্শ দিয়েছি।

এব্যাপারে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হেদায়াতুল ইসলাম ভূঞা জানান, এ ঘটনায় অভিযোগ পেয়েছি। আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


  • 2.8K
    Shares

Related Articles