বিশেষ প্রতিবেদন

৩৫ বছর মাটিতে শুয়ে থাকা প্রতিবন্ধী সজলের পাশে নুরে আলম সিদ্দিকী হক

  • 28
    Shares

মোঃ ইব্রাহিম হোসেন, নিজস্ব প্রতিনিধিঃ জন্মের পর থেকে আজ পর্যন্ত দীর্ঘ ৩২ বছর ২ হাত ২ পা সহ সম্পূর্ণ শরীর প্রতিবন্ধী হয়ে মাটিতে শুয়ে আছে রাজবাড়ী জেলার মোঃ সজল।প্রচন্ড গরমে তার কষ্টের কথা শুনে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন নুরে আলম সিদ্দিকী হক।

মঙ্গলবার (২৬ মে) বিকেলে তার বাড়িতে গিয়ে একটি উন্নতমানের স্টান্ড ফ্যান ও মাল্টিপ্লাক পৌছে দেয় রাজবাড়ী জেলার সকলের আস্থাভাজন সেচ্ছাসেবী সংগঠন “ভালোবাসার রাজবাড়ী” র সদস্যরা।

নুরে আলম সিদ্দিকী হক বাংলাদেশ কৃষক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজবাড়ী জেলার পাঠকপ্রিয় স্থানীয় দৈনিক জনতার আদালত পত্রিকার সম্পাদক।

নুরে আলম সিদ্দিকী হক জানান, আমি সব সময় অসহায় মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখার চেষ্টা করি। অসহায় প্রতিবন্ধি সজলের জন্য আল্লাহর দরবারে দোয়া প্রার্থনা করি।

সেচ্ছাসেবী সংগঠন “ভালোবাসার রাজবাড়ী”র প্রতিষ্ঠাতা সাংবাদিক কাজী তানভীর মাহমুদ জানান, সজল নামের অসহায় সুবিধাবঞ্চীত ছেলেটি এতিম। জন্মের পর থেকেই আজ পর্যন্ত দীর্ঘ ৩২ টি বছর একটানা মাটিতেই শুয়ে আছে। তার বসে থাকার ক্ষমতা নাই। এমন অসহায় মানুষের জন্য ভালোবাসার রাজবাড়ী সংগঠনের পক্ষ থেকে করোনার শুরুর দিকে তার মায়ের হাতে ১৫ দিনের খাদ্য সামগ্রী দেয়া হয়। পরে ২৯ রমজানে ঈদের বাজার ও নতুন লুঙ্গী উপহার দেয়া হয়। তখন দেখি প্রচন্ড গরমে রোজা থেকে মোঃ সজল প্রচন্ড কষ্ট পাচ্ছে। তার একটি ফ্যান দরকার। পরে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন নুরে আলম সিদ্দিকী হক। তিনি একটি উন্নতমানের ফ্যান পাঠিয়ে দেন। যা আমরা ভালোবাসার রাজবাড়ী সংগঠনের সদস্যরা সজলের বাড়িতে পৌছে দেই। আসহায় মানুষের জন্য কাজ করছে আমাদের সংগঠন “ভালোবাসার রাজবাড়ী”। আপনারা সবাই অসহায়দের জন্য সাহায্য পাঠাতে পারেন। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা

“ভালোবাসার রাজবাড়ী”সেচ্ছাসেবী সংগঠন।প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাংবাদিক কাজী তানভীর মাহমুদ।০১৭৪০৮৮৫৫৭১ (বিকাশ নম্বর)

01647226020 ( নগদ নম্বর)।

সজলের মা আলেয়া বেগম বলেন, আমার অসহায় ছেলেটির জন্য যারা ঈদের আগে খাবার, কাপড় ও ঈদের পরের দিন একটি ফ্যান দিয়েছে তাদের সকলের জন্য দোয়া করি আল্লাহ যেন সবাই কে হেফাজত করে।আমাদের পরিবারটি খুবই অসহায়।কিছু আর্থিক সহায়তা পেলে ভালো হতো।


  • 28
    Shares

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button