ক্যাম্পাস

ঢাবির সার্টিফিকেট জালিয়াতি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেট জালিয়াতির অভিযোগে কমল কৃষ্ণ পাল নামে এক বেসরকারী ব্যাংক কর্মকর্তাকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। রবিবার  দুপুরে তাকে শাহবাগ থানায় সোপর্দ করা হয় বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের।প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রাব্বানী নিশ্চিত করেন।সংবাদকর্মীদের তিনি বলেন, “সার্টিফিকেট জালিয়াতির অভিযোগে তদন্ত করার একজনকে থানায় দেয়া হয়েছে।”

অভিযুক্ত কমল কৃষ্ণ পাল বেসরকারি ব্যাংক মার্কেন্টাইল ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের একজন প্রিন্সিপাল কর্মকর্তা বলে ওই ব্যাংক কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বাহালুল হক চৌধুরী  বলেন, “দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জাল সার্টিফিকেট তৈরি করে চাকরি করেছেন অভিযুক্ত কমল কৃষ্ণ পাল। ঢাবি শিক্ষার্থী।না হয়েও তিনি হুবহু বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেট তৈরি করে কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।”তিনি বলেন,” এধরনের জাল সার্টিফিকেট তৈরির পেছনে একটি সংঘবদ্ধ চক্র রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ চক্রকে ধরার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাকে শাহবাগ থানায় সোপর্দ করে।”

এর আগে মার্কেন্টাইল ব্যাংক থেকে কর্মকর্তাদের সার্টিফিকেট যাচাইয়ের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কমল কৃষ্ণের সার্টিফিকেটককে ‘নকল’ বলে ব্যাংকের কাছে পাঠান।রবিবার সকালে এই কর্মকর্তা বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের দপ্তরে সার্টিফিকেট নিয়ে এসে ‘চ্যালেঞ্জ’ করলে তাকে সার্টিফিকেট জালিয়াতির অভিযোগে শাহবাগ পুলিশে দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা কামরুল আহসান খান।

ব্যাংক কর্মকর্তাকে থাকায় সোপর্দের বিষয়টি নিশ্চিত করে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসান  বলেন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের অফিস থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার একজনকে থানায় দিয়েছেন। তবে এখনো কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিব।এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান বলেন, “আমি শুনেছি ঘটনা। এসব জালিয়াত চক্রের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেয়ার জন্য বলেছি”

 

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.