সন্ধ্যা ৭:৩৫ বুধবার ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

যশোরের বাগআঁচড়া ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের মতবিনিময় | কাঠালিয়ায় মাদকদ্রব্য উদ্ধারে সহায়তা করায় গ্রাম পুলিশকে পুরুস্কৃত করলেন ওসি | পলাশবাড়ীতে ৬৫ বোতল ফেন্সিডিল সহ এক মহিলা আটক | বীরগঞ্জে সাপের কামড়ে কিশোরের মৃত্যু | মির্জাপুরে বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু | বীরগঞ্জে ছিনতাইকারী ডলার চক্রের প্রতারক ওসি পরিচয়দানকারী গ্রেফতার | পরিচ্ছন্নকর্মীর জন্য গাবতলী সিটি পল্লীতে আবাসনের ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে: মেয়র আতিকুল | বাজারে এলো ৫ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারিযুক্ত ‘অপো এ৯ ২০২০’ | ক্যাশ রিসাইক্লিং মেশিন উদ্বোধন করলো ইসলামী ব্যাংক | প্রিমিয়ার ব্যাংক এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর |

শামীম ওসমানই হামলার হুকুম দিয়েছেন

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : জানুয়ারি ১৬, ২০১৮ , ৯:০৭ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : ঢাকা
পোস্টটি শেয়ার করুন

হকার উচ্ছেদ নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী ও সংসদ সদস্য শামীম ওসমান পক্ষের পাল্টাপাল্টি অবস্থানে কয়েকদিন ধরে জেলা শহরে বিরাজ করছিলো চরম উত্তেজনা। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী মঙ্গলবার বিকেলে, মেয়র আইভীকে নিয়ে নগরীর বঙ্গবন্ধু সড়কে হকার উচ্ছেদ অভিযান শুরু করে সিটি করপোরেশন। এসময় আইভীর সঙ্গে তার সমর্থকরাও ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ‘হকার মুক্ত ফুটপাত চাই’ স্লোগান ধরে সমর্থকদের নিয়ে চাষাঢ়ার দিকে হেঁটে আসছিলেন মেয়র আইভী। এ সময় সায়েম প্লাজা থেকে আইভীর লোকজনের ওপর বৃষ্টির মতো ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। পিস্তল উঁচিয়ে ফাঁকা গুলিও ছোড়া হয়।

এতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় রণক্ষেত্রে পরিণত হয় পুরো এলাকা।

ধাক্কাধাক্কিতে সড়কে পড়ে যান সেলিনা হায়াৎ আইভী। পায়ে ইটের আঘাত লেগে আহত হন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালায় পুলিশ। এসময় তাদের লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছোড়ে হকাররা। পরে কাঁদানো গ্যাস ও ফাঁকা গুলি ছুড়ে দু’পক্ষকেই ছত্রভঙ্গ করে পুলিশ।

সংঘর্ষের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় হকারদের পক্ষে অবস্থানে অনড় থাকার কথা জানান শামীম ওসমান।

তিনি বলেন, ‘এটা কোনো রাজনৈতিক সংগ্রাম না, হইচই না। এখানে হকাররা বসবে কি বসবে না সেটা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার এবং সিটি করপোরেশন বসে ঠিক করবে। বিকল্প ব্যবস্থা না করা পর্যন্ত হকার আছে, হকার বসবে।’

এরপরই নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন সেলিনা হায়াত আইভী। ঘটনার জন্য শামীম ওসমানকে দায়ী করে আইভী বলেন, ‘আমি মৃত্যুকে ভয় করি না। আমি শান্তিপূর্ণভাবে হেঁটে আসছিলাম। চাষাঢ়ার রাইফেলস ক্লাবে বসে শামীম ওসমান আমার ওপর হামলা চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন। নির্দেশ পেয়ে তাঁর লোকজন ইটপাটকেল ছোড়ে। এটা নিরস্ত্র লোকের ওপর সশস্ত্র হামলা। এ হামলায় সাংবাদিকসহ ১০ জন আহত হয়েছেন।’

এসময় তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক এবং পুলিশ সুপারের পদত্যাগ দাবি করেন। পুলিশ শামীম ওসমানের প্রতি সহানুভূতিশীল ছিলো বলেও অভিযোগ করেন আইভী।

বড় ধরণের সংঘর্ষ এড়াতে শহরজুড়ে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

২৫ শে ডিসেম্বর থেকে নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার উচ্ছেদে অভিযান শুরু করে সিটি করপোরেশন।

Comments

comments