দেশজুড়ে

প্রধানমন্ত্রীর ৩১ দফা বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছেন-করোনা যোদ্ধা মঞ্জরুল ইসলাম বিদ্যুৎ


তৌকির আহাম্মেদ হাসু, সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি: মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৩১ দফা বাস্তবায়নে করোনা ভাইরাস সংকট মোকাবেলায় জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে কর্মহীন অসহায় গরীব মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে করোনা যুদ্ধা সরিষাবাড়ী পৌর আওয়ামী লীগের সহ -সভাপতি ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মঞ্জুরুল ইসলাম বিদ্যুৎ। খাদ্য সহায়তা অব্যাহত রেখে কাজ করে যাচ্ছে।

জানা গেছে ,করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় গত ১০ মার্চ থেকে পৌর শহর ও আশেপাশের গরীব মানুষের সহযোগিতায় করোনা যুদ্ধে মানুষের পাশে কাজ করে যাচ্ছেন।তিনি সরিষাবাড়ী পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মঞ্জুরুল ইসলাম বিদ্যুৎ।সচেতনতামূলক প্রচারপত্র,মাস্ক,খাদ্য সহায়তা,ঈদ উপহার ও নগদ টাকা বিতরণ করে যাচ্ছেন। দশ হাজার সচেতনতামুলক প্রচারপত্র বিলি, পাঁচ হাজার মাস্ক বিতরণ উপজেলা প্রশাসনকে মাস্ক উপহার দিয়েছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকদের পিপিই প্রদান করেছেন। মানুষকে সচেতন করার পাশাপাশি তিনি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা থাকার আহ্বান করেন ও পৌর শহরে জীবণুনাশক স্প্রেও ছিটিয়েছেন।বিদেশ ও ঢাকা ফেরত লোকদের বুঝিয়ে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে অনুপ্রাণিত করেছেন। পৌরসভার শিমলা বাজার এলাকার বিভিন্নস্থানে হাত ধোয়ার জন্য পানির ট্যাংকের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত তিনি কর্মহীন দুই হাজার পরিবারের মধ্যে খাদ্য সহায়তা প্রদান করেন। তিনশত পরিবারের মধ্যে ঈদ উপহার পৌঁছে দিয়েছেন এবং দুইশত পরিবারকে নগদ অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করেছেন।

সরিষাবাড়ী পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মঞ্জুরুল ইসলাম বিদ্যুৎ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাংলাদেশে কেউ না খেয়ে থাকবে না, এটাই আমার বিশ্বাস। আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৩১ দফা বাস্তবায়নে এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব মির্জা আজম এমপি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রটোকল অফিসার এস,এম খুরশিদ উল আলম ভাইসহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহম্মেদ চৌধুরীর অনুপ্রেরণায় আমি মানুষের দ্বারে দ্বারে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিয়েছি এবং এখনো দিচ্ছি। সেই সাথে মানুষকে সচতেন করে চলেছি যাতে এই মহামারী সময়ে সবাই ভাল ও সুস্থ্য থাকে।

তিনি আরও বলেন, যতদিন সামর্থ থাকবে এসব অসহায় মানুষের পাশে সব সময় থাকবো। আমি সকলের কাছে অনুরোধ করছি আপনারা সরকারের নিদের্শ পালন করুন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। কোন ভাবেই অতি জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে বের হবেন না। বেশি বেশি হাত ধুতে হবে এবং অবশ্যই সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে।আমার বাবা আলহাজ্ব মরহুম আব্দুল মালেক ১৯৬৮ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।১৯৭০ সালে বঙ্গবন্ধুর পার্লামেন্টে দুই দুই বার সংসদ সদস্য ও মুক্তিযুদ্ধকালীন ভারত-বাংলাদেশ যৌথ ক্যাম্পের মহেন্দ্রগঞ্জ ক্যাম্পের নির্বাচিত সভাপতি ছিলেন তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে লালন করে দল ও জনসাধারণের জন্য আজীবন কাজ গেছেন। আমিও জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আদর্শে অবিচল থেকে সরিষাবাড়ী পৌরবাসীর সেবা করে যেতে চাই। এছাড়াও তিনি সমাজের বিত্তবানদের অসহায় মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

শিমলাপল্লী গ্রামের শ্রমিক মহন ও উপকারভোগীর সাথে কথা বলে জানা যায়, তারা বলেন, মালেক সাবের ছেলে বিদ্যুৎ খুব ভাল মানুষ। তিনি ১০-১৫ বছর যাবত আমাদের সব সময় পাশে থাকে আমরা কোন কাজে তার কাছে গেলে খালি হাতে ফিরিনি আমাদের এমন খারাপ সময়ে তিনি সব সময় পাশে থেকেছেন, সহযোগিতা করেছেন। আমরা তার জন্য দোয়া করি।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button