আইন ও আদালত

‘মাদক সম্রাজ্ঞী’ স্বপ্নাকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত

  • 5
    Shares

এস,এম,মনির হোসেন জীবন : বিপুল পরিমাণ মাদক ও জাল টাকাসহ রাজধানীর মাটিকাটা (ভাষানটেক) এলাকা থেকে র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার ‘মাদক সম্রাজ্ঞী’ স্বপ্না আক্তারকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

আজ বৃহস্পতিবার স্বপ্না আক্তারকে আদালতে হাজির করে সংশ্লিষ্ট থানায় দায়ের করা মাদক ও জাল টাকা উদ্ধারের মামলায় তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম শহিদুল ইসলাম তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। ক্যান্টনমেন্ট থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন শাখার মুন্সি নুরুল ইসলাম আজ গনমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, র‌্যাব-৪ এর এএসপি সাজেদুল ইসলাম সজল আজ বলেন, বুধবার ক্যান্টনমেন্ট থানাধীন মাটিকাটা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৯৯৫ পিস ইয়াবা, ৮৪ গ্রাম হেরোইন এবং ১০০পিস এক হাজার টাকার জাল টাকাসহ স্বপ্না আক্তারকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর তার বিরুদ্ধে ক্যান্টনমেন্ট থানায় মাদক ও জাল টাকা উদ্ধারের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়।

তিনি বলেন, শীর্ষ সন্ত্রাসী কিলার আব্বাসের সাথে স্বপ্না আক্তারের নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে বলে জানা গেছে। স্বপ্না একই এলাকার মানুষজনের কাছে আব্বাস গ্রুপের সদস্য হিসেবেও পরিচিত। তার বিরুদ্বে ইতোপূর্বে ৪টি মাদকও চাঁদাবাজী মামলা রয়েছে। এছাড়া তার নামে ক্যান্টমেন্টসহ বিভিন্ন থানায় প্রায় শতাধিক জিডি অভিযোগ রয়েছে।

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, স্বপ্না আক্তার দীর্ঘদিন ধরে মাদক কারবার ও চাঁদাবাজিতে মাটিকাটা এলাকায় গড়ে তুলেছে নিজস্ব ক্যাডার বাহিনী। যার কারণে মানুষ ভয়ে তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ করে না। কেউ অভিযোগ করলেই তাকে বিভিন্নভাবে হয়রানি করা হয়।

সন্ত্রাসী কিলার আব্বাসরে সাথে স্বপ্না আক্তাররে নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছেছিল। সে এলাকার লোকজনের নিকট আব্বাস গ্রুপের সদস্য হিসাবে পরিচিত ছিল বলে জানিয়েছে র‌্যাব।পরবর্তীতে জিঞ্জাসাবাদ শেষে তাকে ক্যান্টনমেন্ট থানায় সোর্পদ করা হয়েছে।

এদিকে,আজ বৃহস্পতিবার ক্যান্টনমেন্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী শাহান হক বলেন, এঘটনায় র‌্যাবের পক্ষ থেকে মাদক আইনে থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে।

ওসি জানান, জিঞ্জাসাবাদ শেষে ধৃত মাদক ব্যবসায়ী স্বপ্না আক্তারকে আজ আদালতে পাঠানো হয়েছে। শুনানী শেষে আদালত আসামী স্বপ্না আক্তারকে কারাগারে পাঠিয়েছে।


  • 5
    Shares

Related Articles