উল্লাপাড়ায় স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে গলায় দড়ি দিয়ে মরলেন শাহিদা

0
20

উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ যৌতুকের দাবিতে স্বামীর অমানুসিক নির্যাতন সইতে না পেরে শেষ পর্যন্ত গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করলেন গৃহবধু শাহিদা বেগম (২৮)। ঘটনাটি ঘটেছে উল্লাপাড়া উপজেলার রামকান্তপুর গ্রামে মঙ্গলবার বিকেলে। শাহিদা এই গ্রামের ফকির চাঁনের ছেলে মনিরুল ইসলামের স্ত্রী। প্রায় ১২ বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। শাহিদা বেগম সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার ছোট পাকুরিয়া গ্রামের সাইদুল ইসলামের মেয়ে।

শাহিদার ভাই বাবু মিয়া স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে অভিযোগ করেন, বিয়ের পর থেকেই শাহিদার স্বামী মনিরুল কারণে অকারণে যৌতুক দাবি করে আসছিলেন। যৌতুক না পেয়ে বিভিন্ন সময় স্ত্রীর উপর অমানুসিক নির্যান করে সে। দীর্ঘদিনে এ বিষয়ে মনিরুল ও শাহিদার বাবার বাড়ির লোকজনের মধ্যে বেশ কয়েকদফা শালিসি বৈঠকও হয়। স্বামী ভালো হয়ে যাবেন অঙ্গীকার করলেও স্ত্রীর উপর অত্যাচার অব্যাহত থাকে তার। এ অবস্থায় ঘটনার দিন একই কারণে মনিরুল ও তার মা মিলে শাহিদাকে প্রচন্ড মারধর করেন। পরে শাহিদা তার মনঃকষ্ট নিবারণে শোবার ঘরে দড়ি ঝুঁলিয়ে ফাঁসি নিয়ে আত্মহত্যা করেন।

এ ব্যাপারে উল্লাপাড়া মডেল থানার উপ-পরিদর্শক জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, পুলিশ মঙ্গলবার রাতেই শাহিদার লাশ উদ্ধার করে। বুধবার শাহিদার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে উল্লাপাড়া থানায় ইউডি মামলা হয়েছে।