দেশজুড়ে

মোংলায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে নৌ বাহিনী, কোষ্টগার্ড পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিস, মেডিকেল টিম


মোঃসোহেল, মোংলা প্রতিনিধি: মোংলা বন্দর সহ সুন্দরবন উপকুলে হালকা ভারি বৃস্টি ও দমকা বাতাস বইছে। আজ সকাল থেকে বাতাসের তীব্রতা বেড়েছে। মোংলায় ১০ নাম্বার মহাবিপদ সংকেত জারি করা হয়েছে। বন্দরে এ্যালাট -৪ রয়েছে। পশুর চ্যানেল থেকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়েছে লাইটার কার্গো সহ ছোট নৌযান সমুহ।

উপজেলা প্রশাসন, মোংলা পোর্ট পৌর সভা এবং বন্দর কর্তৃপক্ষের উদ্যেগে পৃথক ৪ টি কন্টোল রুম খোলা হয়েছে। পৌর এলাকা সহ উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে স্কুল কলেজ ও মাদ্রাসা সহ ১০৩টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রয়েছে। সামাজিক দুরত্ব মেনে সকল আশ্রয় গ্রহনের পরামর্শ দিয়েছে প্রশাসন।

এ ছাড়া আশ্রয় কেন্দ্রে চিড়া,মুড়ি শুকনো খাবার ছাড়াও ইফতার সামগ্রী এবং সিহারির ব্যবস্থা গ্রহনের কথা জানিয়েছেন স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন। এদিকে সতর্ক সংকেত বাড়লেও সকাল নাগাদ কাউকে আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে দেখা যায়নি। তবে দ্রুত সকলকে আশ্রয় কেন্দ্রে যাওয়ার জন পরামর্শ ও মাইকিং করছে প্রশাসন।রাত থেকে মোংলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রাহাত মান্নান জানান, পুশুর নদীর তীরবর্তী জয়মনি, চিলা, সুন্দরতলা, কানাইনগর, ও বুড়িরডাঙ্গা সহ আশপাশের প্রায় ৩০ হাজার মানুষকে নিরাপদ আশ্রয় সরিয়ে নেয়া হয়েছে। আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থানকারীদের শুকনো খাবার সহ ইফতার ও সিহারীর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এদিকে বন্দর চ্যানেলে বানিজ্যিক জাহাজ আগমন নির্ঘমন বন্ধ রাখা হয়েছে। বন্ধ রয়েছে জাহাজের পণ্য খালাস বোঝাই সহ সার্বিক কার্যক্রম। একই সঙ্গে বহিঃনোঙ্গরে অবস্থানরত বানিজ্যিক জাহাজ সমুহকে বেতার বার্তায় সতর্ক থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিযার এ্যাডমিরাল এম শাহজাজান জানান, পশুর চ্যানেল নিরাপদে রাখতে ইতিমধ্যে দেশীয় লাইটার জাহাজ ও কার্গো সমুহ চ্যানেল থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে বন্দরের উদ্ধারকারী ৫টি নৌযান।

এছাড়া বন্দরের নিজস্ব ছোট-বড় ৪০টি নৌযান। আপর দিকে মোংলা উপজেলা প্রশাসনের ১টি, পৌর সভার ১টি এবং বন্দর কর্তৃপক্ষের ২টি কন্টোল রুম খোলা হয়েছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে নৌ বাহিনী, কোষ্টগার্ড পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিস, মেডিকেল টিম। সন্ধ্যা ৬ টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মোংলা সহ সুন্দর উপকুলে দমকা হাওয়া সহ থেমে থেমে বৃষ্টি পাত অব্যহত রয়েছে। আশ্রিত মানুষের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে জয়মনি ঘোলে অবস্থিত ফিড সাইলো, মোংলা নৌবাহিনী ও কোষ্টগার্ডের বহুতল ভবন।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button