মোংলায় ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত, সাইক্লোন সেল্টারে আসতে শুরু করেছে মানুষ

0
6

মোঃসোহেল, মোংলা প্রতিনিধিঃ ঘূর্ণিঝড় আম্ফান’র কারণে মোংলা সমুদ্র বন্দরকে সোমবার সকাল ৬টা থেকে ১০ নম্বর বিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলাহয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে আজ বুধবার দুপুরের পর থেকে মোংলা সুন্দরবনসহ আশপাশ উপকূলীয় এলাকা জুড়ে ক্রমই আবহাওয়া ক্রমই খারাপের দিকে যেতে থাকে। বিকেল দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টিপাত শুরু হয় এবং নদীর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে অনেকটা বেড়েছে সন্ধ্যার পর থেকে আরো বাড়তে শুরু করবে। সকল নৌ যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় আম্ফান আজ ২০ শে মে সকাল ১২ টা বেজে ৫৫ মিনিটে মংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ২৯০ কিলোমিটার দক্ষিন পশ্চিম দিকে অবস্থান করছিলো এবং উত্তর উত্তর পুর্ব দিকে অগ্রসর হচ্ছে। বাতাসের একটানা গড় দমকা হাওয়া ঘন্টায় ২২০ কিলোমিটার পর্যন্ত।

মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রাহাত মান্নান জানান, ঘূর্নিঝড় মোকাবেলায় সব ধরনের প্রস্তুতি ও সতর্কতামুলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। খোলা হয়েছে পৃথক কন্ট্রোল রুম। উপজেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মিলিয়ে মোট ১০৩টি সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

মোংলা উপজেলার ঘুর্নিঝড় প্রস্তুতি কর্মসুচি ( সিপিপি) সহ কারী পরিচালক মোঃ আলমগীর হোসেন বলেন, মোংলায় ১০ নম্বর মহা বিপদ সংকেত দেয়া হয়েছে সকাল ৬ টায়। তিনি আরো বলেন এ আম্পান ঘূর্নিঝড় টি মোংলা বন্দর থেকে ২৯০ কিঃমিঃ দুরে অবস্থান করছে (১২ টার বুলেটিন)। তবে সন্ধ্যার দিকে এটি উপকুলে আঘাত হানতে পারে।

ফলে স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় মোংলার সবচেয়ে দুর্গম এলাকা ঘরবাড়িতে বসবাসকারীদের আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে নেওয়া হয়।

মঙ্গলবার থেকে যারা আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিতে এসেছে তাদেরকে উপজেলা প্রশাসন ও পৌর সভার পক্ষ থেকে সাইক্লোন সেল্টারে আসা মানুষদের শুকনা খাবারের ব্যাবস্থা করে।

এবং সিপিপি স্বেচ্ছাসেবক দলসহ প্রশাসনের সদস্যদেরাও মাইকিং করে জনসাধারণকে সাইক্লোন শেল্টারে গিয়ে আশ্রয় নিতে বলা হচ্ছে।