লাইফস্টাইল

অড়বড়ই এর উপকারিতা

  • 7
    Shares

অড়বড়ই প্রায় আমলকীর মতোই তবে আকারে একটু ছোট, হলদে সবুজ রঙের। স্বাদটা অনেকটা কামরাঙ্গা বা বিলম্বির মতো। আমাদের দেশে বিভিন্ন অঞ্চলে এর অনেক প্রকার নাম রয়েছে। যেমন-নলতা, লেবইর, ফরফরি, নইল, নোয়েল, রয়েল, আলবরই, অরবরি ইত্যাদি নাম। তবে অড়বড়ইয়ের পাশাপাশি রয়েল নামটাই বেশি প্রচলিত।

অড়বড়ই গাছ গুল্ম ও বৃক্ষের মাঝামাঝি পর্যায়ের। মূলত অড়বড়ই চাষ করা হয় না, তবে বিশ্বের অনেক দেশেই এটা শোভাবর্ধক গাছ হিসেবে রোপণ করে থাকে। গাছের উচ্চতা খুব বেশি হয় না, মাত্র ৪-৫ মিটার উঁচু হয়। গাছ দেখতে অনেকটা কামরাঙ্গা গাছের মতো। গাছে গোলাপি রঙের থোকা থোকা ফুল ধরে মার্চ-এপ্রিল মাসে। আগস্টের শেষ থেকে অক্টোবর পর্যন্ত ফল সংগ্রহ করা যায়। পাকা ফল হলুদ ও হলুদাভ সবুজ হয়। ফলের ভেতরে গাঢ় সবুজ রঙের আঁটি থাকে। এই আঁটির ভেতর ৬-৮টি মসৃণ, ছোট্ট বীজ থাকে।

অড়বড়ই দিয়ে আচার, জুস, জেলি, চাটনি ইত্যাদিও তৈরি করা হয়। অনেকে এটা দিয়ে টক রান্না করেন বা ভর্তা তৈরি করেন। অড়বড়ইয়ের রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ এবং প্রতি ১০০ গ্রাম অড়বড়ইয়ে আছে-জলীয় অংশ ৯১.৯ গ্রাম

আমিষ ০.১৫৫ গ্রাম

চর্বি ০.৫২ গ্রাম

খাদ্যআঁশ ০.৮ গ্রাম

ক্যালসিয়াম ৫.৪ মিলিগ্রাম

ফসফরাস ১৭.৯ মিলিগ্রাম

আয়রন ৩.২৫ মিলিগ্রাম

ক্যারোটিন ০.০১৯ মিলিগ্রাম

থায়ামিন ০.০২৫ মিলিগ্রাম

রিবোফ্লেভিন ০.০১৩ মিলিগ্রাম

নিয়াসিন ০.২৯২ মিলিগ্রাম

ভিটামিন সি ৪.৬ মিলিগ্রাম
এছাড়াও রয়েছে অড়বড়ইয়ের অনেক ঔষধি গুণ

১.এর বীজ দিয়েলিভারের অসুখের টনিক বানানো হয়।

২.পেটের অসুখ ও কৃমিনাশকে এর বীজ সহায়ক।

৩.এর রস চুলের গোড়ায় লাগালে চুল মজবুত হয়।

৪.মৌসুমি জ্বর প্রতিরোধে ও মুখের রুচি ফিরিয়ে আনতে ফলটি বেশ কাজ করে।

৫.এর রস চুলের খুশকি দূর করতে সাহায্য করে।


  • 7
    Shares

Related Articles