আন্তর্জাতিক

মেয়ে ও জামাতাকে আর হোয়াইট হাউজে দেখতে চান না ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবার নিজের মেয়ের জামাই জারেড কুশনারকে তার উপদেষ্টার পদ থেকে সরিয়ে দিতে চান। একইসাথে মেয়ে ইভানকা ট্রাম্পকেও বের করতে চান হোয়াইট হাউজ থেকে। দুজনই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছেন।

বেশ কিছু বিষয় নিয়ে তাদের সাথে ভালো সময় যাচ্ছে না আলোচিত মার্কিন প্রেসিডেন্টের।
ট্রাম্পের কয়েকজন উপদেষ্টা ও রিপাবলিকান দলের নেতাদের বরাত দিয়ে ‘ভ্যানিটি ফেয়ার ম্যাগাজিন’ এ খবর দিয়েছে।

খবরে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নিজের মেয়ে ও জামাইকে হোয়াইট হাউজ থেকে বের করে নিউ ইয়র্কে পাঠাতে চাইছেন। কুশনারের সঙ্গে বর্তমানে ট্রাম্পের সম্পর্ক ততটা ভালো যাচ্ছে না। আজকাল পত্রপত্রিকায় কুশনার ও ইভানকাকে নিয়ে নানা রকম খবরও বের হচ্ছে যা স্বস্তিদায়ক নয় বলে মনে করছেন প্রেসিডেন্ট।

আমেরিকার একটি সূত্র ভ্যানিটি ফেয়ার ম্যাগাজিনকে বলেছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাদেরকে হোয়াইট হাউজ ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য অব্যাহতভাবে চাপ দিচ্ছেন। ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে- কুশনারের দায়িত্ব এখন কমিয়ে দেয়া হয়েছে এবং তার স্বাধীনতাও খর্ব করা হয়েছে। তিনি এখন হোয়াইট হাউজের চিফ অব স্টাফ জন কেলির নেতৃত্বে কাজ করছেন।

৩৬ বছর বয়সী কুশনার হচ্ছেন নিউ ইয়র্কভিত্তিক রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী এবং আগে সরকারে কাজ করার কোনো অভিজ্ঞতা নেই। কিন্তু কুশনারকে দিয়ে ট্রাম্প আমেরিকার কয়েকটি বাণিজ্য চুক্তি সংশোধন, আফিমের ব্যাপক ব্যবহারের অবসান, চীনের সঙ্গে সম্পকোর্ন্নয়ন এবং মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার মতো গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুতে দায়িত্ব দিয়েছিলেন।

ইহুদি ধর্মাবলম্বী কুশনার আমেরিকা ইসরাইল ও মধ্যপ্রাচ্য রাজনীতিতে ব্যাপক ভুমিকা রাখতে পারবেন বলে ট্রাম্প যে আশা করেছিলেন অনেকটাই ব্যর্থ হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। আর এজন্যই ট্রাম্পের কাছে তাদের গুরুত্ব হারিয়েছে।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.