সাদুল্লাপুরে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে পুড়ে গেছে ১৭টি ঘর, সব হারিয়ে নিঃশ্ব এখন পরিবার

0
16

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা প্রতিনিধি:গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে পুড়ে গেছে ১৭টি ঘর, সব হারিয়ে অসহায় পরিবার গুলো হতবাক ও নিঃস্ব হয়ে পড়েছে।

গত রাতে একটু সময়ের ব্যবধানে গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের সাদুল্লাপুর পশ্চিম পাড়ায় ৩ টি ঘর, ভাতগ্রাম ইউনিয়নের তরপাল গ্রামে ১৪ টি ঘরসহ ৭টি খড়ের ঢিপি ভয়াবহ আগুনে পুড়ে গেছে।

সরেজমিনে জানা যায়- সাদুল্যাপুরের পশ্চিম পাড়া মার্কাস জামে মসজিদের পাশে দিনমজুর ছাইদার মিয়ার বাড়িতে রাত ১১টায় ভয়াবহ আগুন লাগার কারনে তিনটি ঘর, আসবাবপত্র ও ছাগল সহ সবকিছু পুড়ে গেছে, এতে প্রায় দেড় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে। শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত হতে পারে বলে অনেকে ধারনা করছেন।

এদিকে ভাতগ্রাম ইউনিয়নে তরপাল গ্রামের ফারুক মিয়া, আশাদুল হক জলে, মাজেম মিয়া সকলের পিতাঃ মৃত- ইসমাইল হোসেন।

মোছাঃ অমিছা বেওয়া স্বামীঃ মৃত- ইসমাইল হোসেন। সকলের ৭টি খড়ের ঢিপি, ১৪ টি থাকার ঘর ও আসবাবপত্র পুড়ে গেছে। এতে পরিবার পরিজন নিয়ে খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করছেন। আগুন খড়ের ঢিপিতে রাত ১.৩০ টার সময় কে বা কাহারা শত্রুতা বশতঃ আগুন লাগানোর কারনে এই আগুনের সুত্রপাত বলে এলাকাবাসী ধারনা করছেন। এতে প্রায় ৪ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে। ভাতগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এটিএম রেজাওনুল ইসলাম বাবু বলেন- খড়ের ঢিপি থেকে আগুনের সূত্রপাত। কে বা কাহারা খড়ের ঢিপিতে আগুন লাগিয়ে দেয়। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক।

ছাত্রলীগের সাদুল্লাপুর শাখার সভাপতি মোন্তেজার রহমান চঞ্চল বলেন – সাদুল্লাপুর পঃ পাড়া মার্কাস মসজিদের পাশে আগুন লাগার চিতকার শুনে আমরা এলাকাবাসী আগুন নিভানোর চেষ্টা করি।এই ভয়াবহ আগুনে ৩টি ঘর, আসবাবপত্র, ছাগল পুড়ে গেছে। তবে আল্লাহর রহমতে আমরা আগুন নিভাতে সক্ষম হয়েছি নতুবা আরো বড় ধরনের অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটতে পারত। পরে ফায়ার সার্ভিস ঘটনা স্থলে পৌছে।

জেলা প্রশাসন ও সাদুল্লাপুর উপজেলা প্রশাসনকে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য অনুরোধ করেছেন এলাকাবাসী।