অর্থনীতি

আইপিওর জন্য ফের কর সুবিধা দাবি রবি’র

  • 4
    Shares

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের মাধ্যমে (আইপিও) পুঁজিবাজারে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছে রবি আজিয়াটা। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম এই মোবাইল ফোন অপারেটর নির্ধারিত মূল্য পদ্ধতির (Fixed Price Method) আওতায় আইপিওতে আসবে। তবে প্রতিষ্ঠানটি কিছু কর সুবিধা পেলেই কেবল চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে।

আজ সোমবার (১৮ মে) আবারও ওই কর সুবিধার দাবি পুনর্ব্যক্ত করেছে রবি আজিয়াটা। আর এ বিষয়ে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সহযোগিতা চেয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।রবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বিএসইসির নতুন চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের সাথে সাক্ষাত করে এই সহযোগিতা চেয়েছেন।

উল্লেখ,গত ২১ ফেব্রুয়ারি রবির প্যারেন্ট কোম্পানি মালয়েশিয়ার আজিয়াটা রবি আইপিওতে আসবে বলে ঘোষণা দেয়। পরদিন এক সংবাদ সম্মেলনে রবি আজিয়াটা বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করে। তবে এর জন্য তারা কর সংক্রান্ত দুটি শর্তের কথা জানায়। তাদের শর্তের মধ্যে রয়েছে-টার্নওভার (মোট পণ্য ও সেবা বিক্রির পরিমাণ)কর ২ শতাংশ থেকে কমিয়ে দশমিক ৭৫ শতাংশ নির্ধারণ করা। এই কর হার চলতি বছরের বাজেটে ১৬৭ শতাংশ বাড়িয়ে দশমিক ৭৫ শতাংশ ২ শতাংশ করা হয়। রবি আগের কর হার পুনর্বহাল চায়।

অন্যদিকে তালিকাভুক্ত মোবাইল কোম্পানির করপোরেট কর হার আরও ৫ শতাংশ কমিয়ে তালিকা-বহির্ভূত কোম্পানির সঙ্গে ব্যবধান ১০ শতাংশে উন্নীত করার দাবি করে রবি।তাদের যুক্তি,বেশিরভাগ কোম্পানির ক্ষেত্রে তালিকাভুক্ত ও তালিকার বাইরে থাকার কোম্পানির কর হারে ১০ শতাংশ ব্যবধান আছে। অর্থাৎ তালিকাভুক্ত হলে ১০ শতাংশ কর প্রণোদনা পাওয়া যায়।তাই মোবাইল ফোন অপারেটরের ক্ষেত্রেও একই ধরনের কর ছাড়ের সুবিধা থাকা জরুরি।

গত ৩ মার্চ বিএসইসিতে আইপিওর আবেদন জমা দেওয়ার সময়ও রবির পক্ষ থেকে একই দাবি জানানো হয়। বিষয়টি যেহেতু জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) এখতিয়ারের অধীন,তাই এ বিষয়ে এনবিআরের সঙ্গে আলোচনা করার জন্য বিএসইসিকে অনুরোধ জানানো হয়। বিএসইসির পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ চেষ্টার আশ্বাস দেওয়া হয়।

জানা গেছে, আগামী অর্থবছরের বাজেট ঘোষণার সময় ঘনিয়ে আসায় আবারও বিষয়টি ফলোআপ করার জন্য বিএসইসিকে অনুরোধ জানায় রবি। তবে রবি এবং বিএসইসি-উভয় পক্ষ থেকে এটিকে নিতান্তই সৌজন্য সাক্ষাত হিসেবে অভিহিত করা হয়।

এ বিষয়ে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো.সাইফুর রহমান অর্থসূচককে বলেন,রবির সিইওর সাক্ষাতটি ছিল মূলত সৌজন্যমূলক। তবে এর মধ্যেই রবির আইপিওর অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এ বিষয়ে কমিশন থেকে সার্বিক সহযোগিতা করা হবে বলে জানানো হয়েছে। বিশেষ করে কমিশন পুনর্গঠন হলে আইনের মধ্যে থেকে যতটুকু সহযোগিতা করা সম্ভব, ততটুকু করা হবে বলে আশ্বস্ত করা হয়েছে। করা যায়,সেটাই বলা হয়েছে।আইপিওর মাধ্যমে রবি ৫২৩ কোটি ৭৯ লাখ টাকা সংগ্রহ করতে চায়। আর এ লক্ষ্যে অভিহিত মূল্য ১০ টাকা দরে কোম্পানিটি ৫২ কোটি ৩৭ লাখ ৯৩ হাজার শেয়ার ইস্যু করবে।

রবি আজিয়াটার মালিকানায় রয়েছে মালয়েশিয়ার আজিয়াটা গ্রুপ, ভারতের ভারতী এয়ারটেল ও জাপানের এনটিটি ডকোমো। তবে ডকোমো তাদের ৪৬ দশমিক ৩০ শতাংশ শেয়ারের পুরোটাই ছেড়ে দিচ্ছে। আর সেটি কিনে নিচ্ছে ভারতী এয়ারটেল। সবকিছু চূড়ান্ত হয়ে গেছে। এই লেনদেনটি হয়ে যাওয়ার পর কোম্পানিতে ভারতী এয়ারটেলের শেয়ারের পরিমাণ বেড়ে হবে ৩১ দশমিক ৩০ শতাংশ। আর বাকী ৬৮ দশমিক ৭০ শতাংশ শেয়ারের মালিকানা থাকবে আজিয়াটার।


  • 4
    Shares

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button