দেশজুড়ে

নওগাঁর মৎস্য অফিসের কর্মচারীসহ ৭ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আটক

  • 254
    Shares

মোঃ সুইট হোসেন,নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি : নওগাঁর মহাদেবপুরে ৬৮ কেটি গাঁজা, দুটি ট্রাক ও নগদ ৯৪ হাজার ৫শ টাকাসহ মহাদেবপুর উপজেলা মৎস্য অফিসের অফিস সহকারী রিপন হোসেন (৩৩) সহ সাতজনকে আটক করেছে র‌্যাব-৫। এসময় তাদের কাছে থাকা মাদক বিক্রির নগদ ৯৪ হাজার ৫শ টাকা উদ্ধার করা হয়।

মহাদেবপুর থানা পুলিশ সূত্রে জানান, ১৭ মে রোববার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে মহাদেবপুর বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন ব্যাংক এশিয়ার সামনে পাকা রাস্তার উপর র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম. এম. মোহাইমেনুর রশিদ এর নেতৃত্বে একদল র‌্যাব সদস্য অভিযান চালিয়ে দুইটি ট্রাকে থাকা ৬৮ কেজি গাঁজা এবং এক সরকারি কর্মচারীসহ ৭ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে।

এ সময় গাঁজা বহনে দুটি ট্রাক, নগদ ৯৪ হাজার ৫শ টাকা ও ১১টি মোবাইল সেট জব্দ করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে আটককৃতদের মহাদেবপুর থানায় সোপর্দ করে তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ দমণ আইনে মামলা দায়ের পূর্বক ওই দিনই আদালতের মাধ্যমে তাদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। আটককৃতরা হলো নওগাঁর সদর উপজেলার পাইক পাড়া গ্রামের বদিউল হকের ছেলে মহাদেবপুর উপজেলা মৎস্য অফিসের অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটররিপন হোসেন (৩৩), মান্দা উপজেলার শ্রীরামপুর (উত্তরপাড়া) গ্রামের আলাউদ্দীন মন্ডলের ছেলে আলম ইসলাম (২৬), পতœীতলা উপজেলার ঘোষনগর গ্রামের ছইমুদ্দিনের ছেলে মোঃ সেকেন্দার আলী (৪৫), কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার কালীকৃষ্ণনগর গ্রামের অহিদ মিয়ার ছেলে শরীফ মিয়া (৩৪), রংপুর জেলার কাউনিয়া উপজেলার শিবুপাঠান পাড়া গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে মোঃ আতাউর রহমান (২৮), নাটোরের সিংড়া উপজেলার কলম গ্রামের মৃত মিজান উদ্দীনের ছেলে মোঃ মাহাবুব (২৮) ও শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতি উপজেলার দিঘীরপাড়া গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে রাসেল মিয়া (২৭)।

র‌্যাব-৫, জয়পুরহাট ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার মোহাইমেনুর রশিদ জানান, আটক রিপন হোসেন গত ২০০৫-০৬ সাল থেকে সক্রিয়ভাবে আন্তঃ জেলা মাদক ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের সঙ্গে জড়িত। ২০১১ সালে সরকারী চাকুরি অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার পদে যোগদানের পর থেকে নিয়মিত মাদকের বড় বড় চালান কুমিল্লা, বগুড়া, ব্রাহ্মণ বাড়িয়াসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পরিবহনের সাথে সংশ্লিষ্টতা বজায় রাখে।

একজন সরকারী কর্মচারী হয়েও তার এ ধরণের আইন ও সমাজ বিরোধী কর্মকান্ড ইতোপূর্বে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ধরাছোঁয়ার বাইরে ছিলো। র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন রিপনসহ সিন্ডিকেটের অপর ছয় সদস্যকে গ্রেফতারের পর বগুড়া, নওগাঁ ও জয়পুরহাট জেলার বিভিন্ন এলাকায় মাদকের এই ভয়াল থাবা থেকে মানুষ কিছুটা হলেও রক্ষা পাবে বলে আশা প্রকাশ করেন। ম

হাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ নজরুল ইসলাম বলেন, আটককৃতদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ দমণ আইনে মামলা দায়ের পূর্বক আদালতের মাধ্যমে তাদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।


  • 254
    Shares

Related Articles