রাত ১২:০৮ শুক্রবার ৬ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

হরিপুরে মাদ্রাসা শিক্ষক ৩ সন্তানের জননীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ ও মোবাইলে ধর্ষণের ভিডিও ধারণের অভিযোগ

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : June 11, 2017 , 4:59 am
ক্যাটাগরি : রংপুর
পোস্টটি শেয়ার করুন

জে. ইতি ,হরিপুর (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে আঃ মজিদ নামে এক মাদ্রাসা শিক্ষক ৩ সন্তানের জননীকে জোরপূর্বর ধর্ষণ করে মোবাইলে ভিডিও ধারণ করেছে বলে ধর্ষিতা অভিযোগ করেছে।

ধর্ষক মজিদ উপজেলার লহুচাঁদ গ্রামের আঃ জব্বারের ছেলে ও বীরগড় দাখিল মাদ্রাসার সহকারি শিক্ষক।

ধর্ষিতা জানান, গত কয়েক মাস ধরে আমাকে মজিদ মাস্টার বিভিন্ন ধরনের কু-প্রস্তাবের দিয়ে আসছিলো। বিষয়টি আমার স্বামীসহ পরিবারের লোকজনকে জানাতে চাইলে মজিদ আমাকে বিভিন্ন প্রকার হুমকি দেয়। সংসারে অশান্তি না ঘটার কারণে ও লোকলজ্জার ভয়ে বিষয়টি আমি গোপন রাখি।

আমার স্বামী বাড়িতে না থাকার কারণে গত সবেবরাত রাত্রের আগের রাত্রে মজিদ মাস্টার আমার ঘরে জোর পূর্বক প্রবেশ করে আমাকে জাপটে ধরে ফেলে। লোকলজ্জার ভয়ে চিৎকার না দিয়ে মজিদকে ধাক্কা দিয়ে ঘর থেকে বের করার চেষ্টা করলে মজিদ আমাকে বেধরম মারপিট করে। এক পর্যায় আমি কথা বলার শক্তি হারিয়ে ফেলি। এ সুযোগে মজিদ মাস্টার আমাকে ধর্ষণ করে ও ধর্ষণের পুরো ভিডিও তার মোবাইলে ধারণ করে।

সকালে আমার জ্ঞান ফিরলে মজিদের কু-কর্মের বিষয়টি আমার পরিবারকে জানাতে চাইলে সে আমাকে হুমকি দিয়ে বলে তোর সাথে রাত্রে যা যা করেছি সব কিছু মোবাইলে ভিডিও করে রেখেছি। বেশি বাড়াবাড়ি করলে সে ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দিবো এই ভিডিও তোর স্বামী দেখাবো। এই ভয়ে আমি ঘটনার বিষয়টি গোপন রাখি।

মজিদের মোবাইলে ধারণ করা সেই ভিডিও তার স্ত্রী কয়েকদিন আগে দেখে ফেলে। শুরু হয় তাদের মধ্যে ঝগড়া। এক পর্যায় তার স্ত্রী সেই ভিডিও কথা কোনো এক ব্যক্তির কাছে প্রকাশ করে দেয়। ধীরে ধীরে পুরো গ্রাম ভিডিও’র ঘটনা ছড়িয়ে পরে।

ভিডিও ধারণের বিষয়টি আমার স্বামীর কানে আসলে সে আমাকে আমার ছেলে মাথায় হাত দিয়ে কসম খাইয়ে ঘটনার সত্যতা জানতে চায়। না হলে আমাকে তালাক দিয়ে আমার বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দিবে। নিরুপায় হয়ে পুরো ঘটনা আমার স্বামীসহ আমার বাবা-মাকে বলি।

ধর্ষিতার স্বামী আঃ জলিলে কাছে এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মিমাংশা করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে। মিমাংশা না হলে আইনরে আশ্রয় নিবো।

Comments

comments