রাত ১১:০৩ মঙ্গলবার ১২ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের উপর নির্যাতনকারীদের সংগঠনে ঠাই নাইঃ এ্যাড. মেহেদী

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : নভেম্বর ৯, ২০১৯ , ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ
ক্যাটাগরি : খুলনা
পোস্টটি শেয়ার করুন

রেজা আহাম্মেদ জয়ঃ আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জননেতা মাহবুবউল আলম হানিফ এমপির নির্দেশ রয়েছে, আওয়ামীলীগ সংগঠন থেকে অনু-প্রবেশকারীদের একেক করে ছাটাই করা হবে। কুষ্টিয়াকে শান্তির জেলা হিসাবে প্রতিষ্ঠা করতে সন্ত্রাস, মাদক ও দুর্নীতির সাথে যারা জড়িত রয়েছে, প্রমানিত হলে ব্যবস্থা। কুষ্টিয়া সদর উপজেলা উজানগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথি কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ত্যাগী নেতা এ্যাড. শেখ হাসান মেহেদী এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, এবারের কমিটিতে বিএনপি-জামাতের ঠাই হবে না। প্রতিটি কাউন্সিলের পরিবেশ সু-শৃংখল ছিলো। মেহেদী বলেন, এই কমিটি ঘোষণা পরবর্তী সময়ে যারা নেতৃত্বে আসবে তাদের সাথে কাজ করতে হবে। বিগত সময়ে যারা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের নির্যাতন করেছে তাদের ঠাই হবে না।

অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আতাউর রহমান আতা বলেন, জননেতা হানিফ ভাইয়ের পতাকাতলে তাদেরই জায়গা হবে, যারা মাদক, সন্ত্রাস চাঁদাবাজিতে জড়িত নেই। তিনি আরো বলেন, দলের জন্য যারা শ্রম দিয়েছে অবশ্যই তাদেরকে মুল্যায়িত করা হবে। পদের পিছনে দৌড়ানোর প্রয়োজন নাই, পদ নিজের পিছনে দৌড়াবে এমন কাজ দলের জন্য করলে পরিশ্রম কখনো বৃথা যাবে না। কথায় আছে জন্মহোক যথাতথা কর্মহোক ভালো, যার কর্ম ভালো থাকবে সে অবশ্যই সফল হবে, দলেও তাকে মূল্যায়িত করা হবে।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলা উজানগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন বৃহস্পতিবার ( ৭নভেম্বর ২০১৯ইং) বিকেল ৩ঘটিকা রনজিৎপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ছানোয়ার মোল্লা ও পরিচালনা করেন আবু বক্কর সিদ্দিকী।

অনুষ্ঠানে উদ্ধোধক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাড. আক্তারুজ্জামান মাসুম। বিশেষ বক্তা ছিলেন সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আক্তারুজ্জামান বিশ্বাস। সম্মানিত অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ মন্ত্রালয় সম্পাদক মতিয়ার রহমান, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাজহারুল আলম সুমন, জেলা আওয়ামীলীগ সদস্য এ্যাড. জিহাদুল ইসলাম, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ডা. গোলাম মওলা, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. খন্দকার সামস তানিম মুক্তি, সাংগঠনিক সম্পাদক আফরোজা আক্তার ডিউ, শহর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মানজিয়ার রহমান চঞ্চল, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ আহমেদ, শহর যুবলীগের সাবেক যুগ্ম-আহবায়ক জেড এম সম্রাট, উজানগ্রাম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সাবুবিন ইসলাম সাবু সহ দলীয় অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

বক্তারা আরো বলেন, সকলে ঐক্য বদ্ধ হয়ে আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জননেতা মাহবুবউল আলম হানিফ এমপির পতাকাতলে মিলিত হয়ে সাংগঠনিক কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হবে। কমিটির নেতৃত্বে যেই আসুক তাকে মেনে নিয়ে এলাকায় শান্তিপূর্ণ ভাবে সকলে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দলীয় কাজ করতে হবে। এই ইউনিয়নে যিনি আবার দায়িত্ব পাবে তাকে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতা মেনে কাজ করার আহব্বান করেন।

অনুষ্ঠানের প্রথম অধিবেশন শেষে ২য় অধিবেশনে আগের কমিটিকে বিলুপ্তি ঘোষনা করেন এবং নতুন করে যারা নেতৃত্বে আসতে ইচ্ছুক তাদের মধ্যে থেকে এক এক করে পর্যায়ক্রমে কমিটি জমা দেন। পরে একাধিক কমিটি জমা পড়েছে বিধায় পরবর্তীতে কমিটি ঘোষণা করবেন বলে জানা যায়। এদিকে পুনরায় কমিটি জমা দেন ছানোয়ার মোল্লা ও আবু বক্কর সিদ্দিকী, তারা দু জনেই সাংবাদিকদের বলেন যতদিন দায়িত্ব পালন করেছি ততদিন সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করার চেষ্টা করেছি, ছোট খাটো ভুল ভ্রান্তি হলে নেতাদের কাছে ক্ষমা চেয়ে বলেন পুনরায় নেতৃত্ব দেওয়ার সুযোগ দিলে শৃংখলার সাথে দায়িত্ব পালন করবেন। পরে নেতারা বলেন, যাকেই দায়িত্ব দেওয়া হবে তার নেতৃত্বে সকলকে সংগঠনের কাজ করার আহব্বান করেন।

Comments

comments