রাত ১০:২৪ মঙ্গলবার ১২ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

গোপালপুরে সুজনের ১৭ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও বর্ণাঢ্য পদযাত্রা | বাংলাদেশে তৈরি হচ্ছে অপো | সংসদে বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট বিল পাস | আফগানিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ করে, সিরিজ নিজেদের করে নিলো সফরকারী উইন্ডিজ | জেএসসি’র বিজ্ঞান ও গণিত পরীক্ষার নতুন সময়সূচি | কুষ্টিয়ায় নির্বাহী প্রকৌশলী অফিসের শুভ উদ্ধোধন ও বৃক্ষ রোপন করলেনঃ হানিফ | ১০৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা সহ পাঁচ ক্যামেরার ‘মি সিসি৯ প্রো’ | শার্শার রামপুর বাজারে সরদার ফুড এন্ড বেকারীতে ভ্রম্যমান আদালতের অভিযান | দেশের কোথাও কোথাও হালকা কুয়াশা পড়তে পারে | নিরাপত্তা চেয়ে রাবির দুই শিক্ষকের পাল্টাপাল্টি জিডি |

স্কুলে না গিয়েই ১০ মাসের বেতন নিলেন এমপির স্ত্রী

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : নভেম্বর ৮, ২০১৯ , ১০:৪৩ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : সিলেট
পোস্টটি শেয়ার করুন

নিয়োগের পর ১০ মাস কেটে গেছে। এর মধ্যে মাত্র একদিন ক্লাসে এসেছিলেন সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার তেঘরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা তানভী ঝুমুর। ৯ মাস ২৯ দিন অনুপস্থিত থাকলেও সময়মতো ঠিকই বেতন তুলছিলেন তিনি। গতকাল বৃহস্পতিবার তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অফিস।

তানভী ঝুমুর সুনামগঞ্জ-১ (তাহিরপুর, জামালগঞ্জ, ধর্মপাশা) আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) মোয়াজ্জেম হোসেন রতনের দ্বিতীয় স্ত্রী। তাহিরপুর উপজেলায় প্রথমে শিক্ষকতা করলেও ডেপুটেশনে এসে বর্তমানে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার তেঘরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত হন তিনি।

১০ মাসে একদিন স্কুলে আসার বিষয়টি চাউর হলে কর্তৃপক্ষ তার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে। কিন্তু তাকে পাওয়া যায়নি। তেঘরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফেরদৌস আরা ইয়াসমিন বলেন, ‘গত ১০ মাসে এক দিন (২০১৯ সালের ৭ জানুয়ারি) তিনি স্কুলে আসেন। এরপর থেকে তিনি অনুপস্থিত। তিনি কোথায় আছেন, কী করছেন আমরা জানি না। তাকে ফোন দেওয়া হলেও তিনি রিসিভ করেন না।’

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. জিল্লুর রহমান বলেন, ‘বিনা কারণে বিদ্যালয়ে দীর্ঘ সময় অনুপস্থিত থাকায় সহকারী শিক্ষক তানভী ঝুমুকে বরখাস্ত করা হয়েছে। একই সঙ্গে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।এ বিষয়ে এমপি মোয়াজ্জেম হোসেন রতন বলেন, ‘আমার স্ত্রী মাতৃকালীন ছুটিতে রয়েছে এবং এর আগে সে অসুস্থ ছিল। তার আবেদন প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে দেওয়া আছে।

Comments

comments