দুপুর ২:৪৬ মঙ্গলবার ১২ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

হিজলায় প্রতিবন্ধির কৃষি ফসল কেটে বিনস্ট করার অভিযোগ

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : নভেম্বর ৭, ২০১৯ , ৬:০৩ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : বরিশাল
পোস্টটি শেয়ার করুন

হিজলা প্রতিনিধি: বরিশালের হিজলা উপজেলার গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়নের গুয়াবাড়িয়া গ্রামের আলী আহাম্মদ সরদারের পুত্র শারিরিক প্রতিবন্ধি ইউনুছ সরদারের কৃষি ফসল পেঁপে গাছ ও ছিম গাছ কেটে বিনস্ট ও পুকুরে বিষ প্রয়োগে মাছ নিধন করার অভিযোগ কালিকাপুর গ্রামের মৃত: গনি সরদারের ছেলে ভুমিদস্যু ছত্তার সরদারের বিরুদ্ধে। প্রতিবন্ধি ইউনুছ সরদার তার বোন মতিনুর বেগম এর ক্রয়কৃত জমিতে কৃষি ফসল চাষাবাদ ও তার বাবা আলী আহাম্মদ সরদারের জমিতে পুকুর কেটে মাছ চাষ করে কোন রকম জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। ইউনুছ সরদার দূর্ঘটনায় তার ২ টি হাত কর্তন হয়।

এর পর থেকেই তার হাত ২ দিয়ে কিছুই করতে না পেরে কোন মতে পরিবারের লোক দিয়ে কৃষি কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। এই অসহায় মানুষটার জীবিকার শেষ সম্বলটুটুই এই ভুমিদস্যু ছত্তার কেড়ে নিয়েছে। এই অসহায় মানুষটির পাশে দাঁড়ানোর কেহ নেই, এমনকি তার কোন সহদোর ভাই ও নেই। ঘটনাস্থলে দিয়ে দেখা যায় প্রায় ৩০/৪০ টি পেঁপে গাছ ও কয়েকটি ছিম গাছ কাটা। স্থানীয়দের কাছে জানাযায় অসহায় প্রতিবন্ধি ইউনুছ সরদারের ও তার বোন মতিনুরের জমির উপর লোলুপ দৃস্টিতে ভুমিদস্যু ছত্তার দীর্ঘ দিন যাবত বিভিন্ন ভাবে ক্ষতি করে আসছে।

৫ নভেম্বর দিবাগত গভির রাতে এই গাছগুলো কাটা হয়েছে। এর পূর্বে গত ৫ অক্টোবর প্রতিবন্ধি ইউনুছকে রাতের অন্ধকারের মারধর করে পুকুরের পানিতে ডুবিয়ে মারতে চেয়েছিল এই ছত্তার এব্যারে হিজলা থানায় মামলা হয়েছিল, এতে ছত্তার পুলিশের হাতে আটক হয়ে জেলহাজতে যায়, এতে ৫ নভেম্বর আদালত থেকে জামিন পায়, জেলথেকে জামিন পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে আবারও গাছ কাটছে এমনটাই ধারনা স্থানীয়দের।

প্রতিবন্ধি ইউনুছ জানায় ছত্তার এর আগেও ৮ নভেম্বর প্রকাশ্যে আমার ফসলি গাছ কেটেছে যা স্থানীয়রা দেখছে, ঐ দিনও ছত্তার আমার পেঁপে গাছ ও ছিম গাছ কেঠেছে ও পাশবর্তী আমার পুকুরে বিষ দিয়ে মাছ মারছে। তিনি আরো বলেন রাত সারে ৪ টার দিকে ছত্তার ও নুরমোহাম্মদ সরদারের ছেলে ইব্রাহিমকে হাতে দা নিয়ে যেতে গেখেছি, তখন ছত্তার আমাকে প্রানে মারার হুমকি দিয়ে বলে, তোকেও এই দাও দিয়ে কুচি কুচি করে কাটব।

ইউনুছ আরো বলেন আরো ৬/৭ বছর পূর্বে আমার বাবা আলী আহাম্মদ সরদারকে প্রানে মারার জন্য আমাদের ঘরে ঢুকে দা দিয়ে কোপ দিয়েছিল, সে ব্যাপারে মামলা হয়েছিল এবং সেই মামলায় সাজাও হয়, কিন্তু স্থানিয়দের অরোরোধে আদালত থেকে ছাড়িয়ে আনা হয়। প্রাননাশের ভয়ে প্রতিবন্ধি ইউনুছ এখন পালিয়ে বেড়াচ্ছে। ফসলি গাছ কাটার অভিযোগ সম্পর্কে ছত্তার সরদাররের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, গাছকাটার বিষয় তিনি এরিয়ে গিয়ে বলেন ইউনুছ আমার জমি দখল করে রেখেছে। ফসলি কাছ কাটা ও প্রননাশের হুমকির বিষয়ে হিজলা থানায় একটি সাধারন ডায়র করা হয়েছে। হিজলা থানা অফিসার ইনচার্জ অসীম কুমার সিকদার জানায় ফসলি গাছকাটা ও হুমকির বিষয়ে থানায় সাধারন ডায়রী করা হয়েছে। এব্যপারে মামলা করলে আমরা মামলা নেব।

Comments

comments