রাত ৪:৩০ মঙ্গলবার ১৯শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

গাইবান্ধায় সোনালী ব্যাংক সরানোর সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : নভেম্বর ৫, ২০১৯ , ১০:২২ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : রংপুর
পোস্টটি শেয়ার করুন

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধা সদর উপজেলার কামারজানী ইউনিয়নের কামারজানী বন্দর থেকে সোনালী ব্যাংক স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

আজ ৫ নভেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে গাইবান্ধা সদর ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কামারজানী, গিদারী, মোল্লারচর, মালীবাড়ী, শ্রীপুর ও কাপাশিয়া ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষের উদ্যোগে কামারজানী বন্দরে ব্যাংকটির কার্যালয়ের সামনে এই বিশাল মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়। উপস্থিত ছিলেন গাইবান্ধা জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ্ আহসান হাবীব রাজিব।

এ সময় কামারজানী বাজারের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে ব্যবসায়ী, কৃষক, শ্রমিক, জেলে, দিনমজুরসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার হাজার হাজার মানুষ অংশ নেন ।
মানববন্ধনে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ,ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ সচেতন মানুষ এতে বক্তব্য রাখেন।

বক্তারা বলেন, ১৯৭৬ সালে কামারজানী বন্দরে ব্যাংকটি স্থাপনের পর থেকে কয়েক হাজার গ্রাহক আর্থিক লেনদেন করছেন। ব্যাংকটি সর্বশেষ ২০১৮ ও ২০১৯ অর্থবছরেও লাভের মুখ দেখেছে। তারপরও একটি স্বার্থান্বেষী মহল ব্যাংকের শাখাটি কামারজানী বন্দর থেকে দারিয়াপুরে স্থানান্তরের ষড়যন্ত্র করছে। আর তা করা হলে ৬টি ইউনিয়নের বয়স্ক, প্রতিবন্ধী, বিধবা, শিশু-কিশোরী-মাতৃত্বকালীন ভাতা, স্কুল-কলেজ-মাদরাসার শিক্ষক-কর্মচারী ও সরকারি-বেসরকারি চাকরিজীবিদের বেতন, বিদেশ থেকে পাঠানো টাকা উত্তোলন, অবসরকালীন ভাতা এবং ব্যাংকটিতে আর্থিক লেনদেন করা ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ চরম ভোগান্তির শিকার হবেন। শুধু তাই না, কামারজানী বন্দরটিতে গ্রামীণ ব্যাংকসহ বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার দৈনিক লেনদেন করতে চরম বিপাকে পড়তে হবে কর্মকর্তাদের। এসব সুবিধাভোগীদের প্রায় ৪০ কিলোমিটার দূরে গিয়ে ব্যাংকের প্রয়োজনীয় কাজ শেষ করতে হবে। আর এই দীর্ঘপথে যাতায়াত করতে গিয়ে চরাঞ্চল ও গ্রামের নিরীহ সাধারণ মানুষ হয়রানীর শিকার হবেন। বেশি টাকা ও সময় ব্যয় হবে, ছিনতাই ও ডাকাতির ঘটনা ঘটবে। আর তাই কামারজানী বন্দর থেকে ব্যাংক স্থানান্তরের প্রক্রিয়া বাতিলের দাবি জানান বক্তারা। যদি ব্যাংকটি দারিয়াপুরে স্থানান্তর করা হয় তাহলে যে কোনভাবেই তা প্রতিহত করার হুশিয়ারি দেওয়া হয় মানববন্ধন থেকে।

এদিকে সোনালী ব্যাংকের বহু পুরানো শাখাটি বর্তমান সময়ে এই এলাকা হতে সরানোর বিষয়টি স্থানীয়রা গভীর ষড়যন্ত্র মনে করছে। তারা আরো মনে করেন অত্র এলাকার উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে এই ষরযন্ত্র।

Comments

comments