বিকাল ৫:৪২ বৃহস্পতিবার ১৪ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

ঘর ভাঙছে মেননের

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : অক্টোবর ২৯, ২০১৯ , ৫:১৮ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : বিশেষ প্রতিবেদন
পোস্টটি শেয়ার করুন

দলের ভেতরে বাইরে বিপদ পিছু ছাড়ছে না রাশেদ খান মেননের। ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন নিয়ে বক্তব্য দিয়ে ক্ষমতাসীন ১৪ দলের মধ্যে চাপে পড়া শুরু মেননের। তোপের মুখে প্রথমে নিজ বক্তব্যের ব্যাখ্যা এবং পরে দুঃখপ্রকাশ করে চিঠি দিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করতে সক্ষম হয়েছেন প্রবীন এ রাজনীতিক। জোট ম্যানেজ করে নিলেও নিজের দল ওয়ার্কার্স পার্টি নিয়ে বিপাকে পড়েছেন তিনি। তার দলে আবারো ভাঙন দেখা দিয়েছে।

গত রবিবার বরিশালে দেয়া বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে বক্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করে ১৪ দলের সমন্বয়ক আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিমের কাছে চিঠি দেন মেনন। ১৪ দল মেননের ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে ১৪ দলের শরিক দলের নেতা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেননের একটি বক্তব্যকে কেন্দ্র করে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছিল। আমরা সে বিষয়ে ব্যাখ্যা চেয়ে তাকে চিঠি দিয়েছিলাম।’

‘তিনি নির্বাচন নিয়ে ১৪ দলের বক্তব্যের সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন। তারপর তিনি তার বক্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন। আমরা তার জবাবে সন্তুষ্ট হয়েছি। যে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছিল তার অবসান ঘটেছে।গতকাল ১৪ দলের সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, বাংলাদেশ জাসদের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান প্রমুখ।

তবে এরপরই খবর আসে, মেননের দলের ছয় নেতা আসন্ন কংগ্রেস বর্জনের ঘোষণা দেন। তারা হলেন পলিটব্যুরো সদস্য নুরুল হাসান ও ইকবাল কবির জাহিদ, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জাকির হোসেন হবি, মোফাজ্জেল হোসেন মঞ্জু, অনিল বিশ্বাস ও তুষার কান্তি দাস। মেননকে ছেড়ে যাওয়া নেতারা ইতিমধ্যে তারা নতুন দল গঠনেরও ইঙ্গিত দিয়েছেন। গণমাধ্যমে বিজ্ঞপি পাঠিয়ে এই নেতারা কংগ্রেসে অংশ না নেয়ার কথা জানান। তাদের মতো আরও কয়েকজন নেতা কংগ্রেসে অংশ না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

Comments

comments