বিকাল ৫:২০ বৃহস্পতিবার ১৭ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং

রাজধানীর মিরপুরে এক বাসা থেকে স্বামী-স্ত্রী ও ছেলের মৃতদেহ উদ্ধার

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : অক্টোবর ১০, ২০১৯ , ৫:৫২ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : ঢাকা
পোস্টটি শেয়ার করুন

এস,এম,মনির হোসেন জীবন ॥ রাজধানীর মিরপুর ১৩ নম্বর সেকশনের একটি বাসা থেকে একই পরিবারের ৩জনের মরদেহ উদ্বার করেছে কাফরুল থানা পুলিশ। নিহতরা হলেন, স্বামী মো. বায়েজীদ (৪৭) তার স্ত্রী অঞ্জনা (৪০) তাদের একমাত্র ছেলে ফারহান (১৭)। নিহত ফারহান মিরপুর কমার্স কলেজের একাদশ প্রথম বর্ষে শিক্ষার্থী ছিলেন। ঘটনার পর সংশ্লিস্ট থানা পুলিশ ওই বাসার একটি রুম থেকে একটি চিরকুট উদ্বার করেছে। খবর পেয়ে পুলিশ নিহতদের মৃতদেহ তিনটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) দুপুর ৩টার দিকে মিরপুর ১৩ নম্বর সেকশনের ৫ নম্বর সড়কের একটি বাসা থেকে মরদেহ তিনটি উদ্ধার করা হয়। নিহত এই দম্পত্তি বহুতল ওই বাসার দ্বিতীয় তলায় তারা ভাড়া থাকতেন।ডিএমপি কাফরুল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সেলিমুজ্জামান আজ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

কাফরুল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর আলম আজ জানায়, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে বায়েজীদ তার স্ত্রী ও সন্তানকে বিষ খাইয়ে হত্যা করেন। পরে গলায় ফাঁস দিয়ে নিজে আত্মহত্যা করেন। তাদের রুম থেকে একটি চিরকুট উদ্বার করা হয়েছে।

তিনি জানান, কি কারণে এ ঘটনা ঘটেছে তা গুরুত্ব সহকারে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলে জানান এসআই জাহাঙ্গীর আলম।

স্থানীয় এলাকাবাসি ও প্রতিবেশীরা জানান, মো. বায়োজিদ ব্যবসায়িক ও আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ছিলেন এবং তিনি বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ঋণও নিয়েছিলেন। পারিবারিক কলহে এ ঘটনা ঘটতে পারে। ঋণের টাকা পরিশোধ করতে না পেরে তারা আত্মহত্যা করতে পারেন বলে ধারনা করা হচেছ।

ডিএমপি কাফরুল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. সেলিমুজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ওই বাসায় গিয়ে আমরা দেখতে পাই ছেলে এবং স্ত্রী বিছানায় পড়ে আছেন। আর বায়োজিদ ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছে।

ওসি জানান, তবে, এটি হত্যা না আত্মহত্যা সেটি সিআইডির ক্রাইম সিন টিম আলামত সংগ্রহ করার পর বলা যাবে। ঘটনার তদন্তে ক্রাইম সিন টিম কাজ করছে। এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মিরপুরের কাফরুল থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

Comments

comments